কলকাতা: শোনা যাচ্ছিল বুধবারই দল থেকে বিদায়ের চিঠি আমনাকে ধরিয়ে দেবে লালহলুদ। কিন্তু তা হল না। কারণ তুমুল দর কষাকষি করছেন সিরিয়ান মিডফিল্ডার। করতে পারছেন, কারণ মরশুমের শুরুতে ইস্টবেঙ্গলের সঙ্গে তাঁর যা চুক্তি হয়েছে, তাতে তাঁকে মাঝপথে দলছুট করার কোনো আইনি উপায় নেই। অন্যদিকে স্প্যানিশ কোচ কোনো মতেই তাঁকে দলে রাখতে চান না।

এই অবস্থায় কোয়েস চাইছিল নভেম্বর ও ডিসেম্বরের বেতন দিয়ে আমনাকে দেশে পাঠিয়ে দিতে। কিন্তু আমনা বেঁকে বসেছেন। তাঁর দাবি তাঁকি আরও পাঁচ মাস, অর্থাৎ পুরো মরশুমের টাকা দিতে হবে। এই অবস্থায় কোয়েস বলছে, আমনা ফিট নন। কিন্তু সিরিয়ানের দাবি তিনি ফিট। কিন্তু নিজেকে ফিট ঘোষণা করা সত্ত্বেও স্প্যানিশ কোচ তাঁকে গত তিন ম্যাচে খেলাননি। কোচের মত, তিনি যে রকম ফিটনেস চাইছেন, ‘বুড়ো’ আমনার পক্ষে তেমনটা হওয়া সম্ভব না। এই পরিস্থিতিতে লালহলুদের এক শীর্ষ কর্তা আমনার পাশে দাঁড়িয়েছেন। তিনি আমনাকে বলেছেন বিনা যুদ্ধে(পুরো টাকা না নিয়ে) জমি না ছাড়তে। আসলে কোয়েসের বোলবোলাওয়ের বাজারে তিনি কোচকে ম্যানেজ করে আমনাকে খেলাতে পারেননি। তাঁর পরিকল্পনা মতো মতো আমনাও সরছেন না নিজের অবস্থান থেকে। দর কষাকষি এখনও শেষ হয়নি। কিন্তু এই অবস্থা বেশিদিন চলবে না।

টাকাপয়সার রফা না মেনে নিলে, এরপর আমনাকে বলা হবে ফিটনেসের পরীক্ষা দিতে। আমনা সেটা দিতে রাজি। কিন্তু ক্লাবের ভেতরের খবর, সেই টেস্টেও স্প্যানিশরা আমনাকে পাস করতে দেবেন না। সব মিলিয়ে এখন লালহলুদে আমনা-কাণ্ড জমজমাট।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here