eb

ইস্টবেঙ্গল – ১ (এনরিকে)                          চেন্নাই সিটি – ২ (স্যান্ড্রো, নেস্ট্র- পেনাল্টি)

ওয়েবডেস্ক: পর পর দু’ম্যাচে জয় পেয়ে লিগ অভিযান ভালোই শুরু করেছিল ইস্টবেঙ্গল। ফলে মঙ্গলবার ঘরের মাঠে জয়ের হ্যাটট্রিক করে মাঠ ছাড়তে চেয়েছিলেন লাল-হলুদ খেলোয়াড়রা। কিন্তু তা হল না। লিগের প্রথম হারের সম্মুখীন হল তারা। শীর্ষে থাকা চেন্নাই সিটি এফসির কাছে। লাল-হলুদকে হারিয়ে চার ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষস্থানে নিজেদের আসন আরও মজবুত করল চেন্নাই। ম্যাচের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত তাদের আধিপত্যই বেশি। প্রায় ৫৭ শতাংশ বল পজেশন। অন্য দিকে এ দিন তেমন ছন্দে পাওয়াই গেল না ইস্টবেঙ্গলকে। মোট শটের থেকে তাদের ফাউলের সংখ্যা বেশি।

প্রথমার্ধে বিপক্ষকে মেপে ধীরে ধীরে ম্যাচে ফেরার চেষ্টা চালায় চেন্নাই। ১৯ মিনিটেই গোল পেয়ে যেত তারা কিন্তু সুযোগ কার্যকর করতে ব্যর্থ মাঞ্জি। এ দিন চেন্নাই জার্সিতে বেশ নজর কাড়লেন চার্লস, রোমারিওরা। ম্যাচের সেরাও তাদের খেলোয়াড় ভান্সপল। চাপ রাখার ফল অবশেষে পেয়ে যায় তাঁরা। প্রথমার্ধের সংযোজিত সময়ে দুর্দান্ত ফ্রিকিকে চেন্নাইকে লিড দিয়ে বিরতিতে পাঠান স্যান্ড্রো।

পিছিয়ে পড়ে প্রথমার্ধের তুলনায় দ্বিতীয়ার্ধে শুরু থেকেই চাপ বাড়ায় ইস্টবেঙ্গল। যার ফল ৫২ মিনিটে দলের হয়ে সমতা ফেরান এনরিকে। ফুটবলে যে দলের পাসিং, রিসিভিং ভাল সেই দল যে কোনো মুহূর্তে খেলা ঘুরিয়ে দিতে পারে। এ দিন তাই প্রমাণ করল চেন্নাই। গোল হজম করে চাপ কাটিয়ে ম্যাচে ফেরার চেষ্টা চালায় তারা। সুযোগ পেয়েছিলেন নেস্টর কিন্তু কার্যকর হয়নি। হাফ চান্সে কয়েকবার সুযোগ পেয়েছিলেন লাল-হলুদের অ্যাকোস্তা, জবি জাস্টিনরা তবে তেমন বিপদ তৈরি হয়নি। অন্যদিকে লালহলুদ কিপার রক্ষিত দাগর বক্সে বিপক্ষ খেলোয়াড়কে ফাউল করায় পেনাল্টি পায় চেন্নাই। ৮৬ মিনিটে দলের হয়ে গেল সেই নেস্টরের।

ফলে অ্যাওয়ে ম্যাচ থেকে পুরো পয়েন্ট নিয়ে রীতিমতো খুশি চেন্নাই শিবির।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here