কলকাতা: যদি শেষ অবধি ব্যাপারটা সম্ভব হয়, তাহলে কেঁপে উঠবে ময়দান। ১ আগস্ট কলকাতার প্রবীণ থেকে নবীন ফুটবলপ্রেমীদের একমাত্র গন্তব্য হবে ইস্টবেঙ্গল দিবস-উদ্‌যাপন স্থল। মোহনবাগান সমর্থকরাও কি নিজেদের আটকে রাখতে পারবেন?

হ্যাঁ। তেমনই উদ্যোগ নিচ্ছেন ইস্টবেঙ্গলের শীর্ষকর্তা দেবব্রত সরকার। কোয়েস কর্পকে বিনিয়োগকারী হিসেবে পাওয়ার পর প্রথম ইস্টবেঙ্গল দিবসে তাক লাগিয়ে দিতে চায় ৯৯ বছরের পুরনো ক্লাব। তাই দেবব্রতবাবু শরণাপন্ন হয়েছেন জামসিদ নাসিরির।

ইস্টবেঙ্গল জার্সিতে মজিদ বাসকর

হবেন নাই বা কেন? স্বদেশি জামসিদ ছাড়া কেই বা আছেন, যিনি তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন। টানা ছয় বছর মহামেডানে খেললেও কলকাতা ময়দানে মজিদ বাসকর তো প্রথম পা রেখেছিলেন ইস্টবেঙ্গলের হাত ধরেই। সেই ১৯৭৯ সালে। খেলেছিলেন ১৯৮১ সাল অবধি। পরবর্তী কালে ড্রাগ সহ নানা বিতর্কে জড়িয়ে ফুটবল থেকে হারিয়ে গেলেও কলকাতায় খেলে যাওয়া সর্বকালের সেরা বিদেশি হিসেবে তাঁকেই এখনও মানেন বেশিরভাগ মানুষ।

মজিদ বাসকর এখন, ৬১ বছর বয়সে

সেই ইরানি মজিদকেই ইস্টবেঙ্গল দিবসে নিয়ে আসতে চান দেবব্রত সরকার। সে জন্য যা যা দরকার সবই করছেন তিনি। কিন্তু কী বলছেন মজিদ?  তিনি কি কলকাতায় এসে হৃদয় খুঁড়ে বেদনা জাগাতে রাজি? সেই উত্তর কেবল জানেন জামসিদ নাসিরি ও দেবব্রতবাবু।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here