হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন ফুটবলার কার্লটন চ্যাপম্যান

0
কার্লটন চ্যাপম্যান

খবর অনলাইন ডেস্ক : সোমবার সকালে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন নব্বই দশকের জনপ্রিয় ফুটবলার কার্লটন চ্যাপম্যান। তাঁর বয়স হয়েছিল ৪৯ বছর।

সোমবার ভোর তিনটে নাগাদ তাঁর প্রচণ্ড পিঠে ব্যাথা শুরু হয়। তাঁকে বেঙ্গালুরুর একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ভোর ৫টা নাগাদ সেখানেই তাঁর মৃত্যু হয়।

Loading videos...

দীর্ঘদিন ধরে তিনি ইস্টবেঙ্গলের মিডফিল্ড সামলেছেন। চ্যাপম্যান খেলেছেন জেসিটি, এফসি কোচি হয়ে। জাতীয় দলেও তিনি নির্ভরযোগ্য মিডফিল্ডার ছিলেন তিনি। খেলা ছেড়ে দেওয়ার পর তিনি কোচিং সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। বিভিন্ন ক্লাবে ফুটবল কোচিংও করিয়েছেন তিনি।

১৯৭১ সালে বেঙ্গালুরুতে জন্ম হয় তাঁর। ১৯৯৩ সালে তিনি প্রথমবার ইস্টবেঙ্গলের জার্সিতে মাঠে নামেন। এর পর তিনি যোগ দেন জেসিটিতে। তাঁর মাঝমাঠ সামলানোর দক্ষতায় সে সময় জেসিটি ১৪টি ট্রফি জিতেছিল।

১৯৯৮ সালে তিনি আবার ইস্টবঙ্গলে ফেরেন। ২০০১ সালে ইস্টবেঙ্গল জাতীয় লিগ জেতে। এশিয়ান কাপ উইনার্স কাপের ম্যাচে ইরাকের আল জাওরাকে ইস্টবেঙ্গল ৬-২ হারিয়েছিল। সেদিন লাল-হলুদ জার্সিতে হ্যাট্রিক করেছিলেন চ্যাপম্যান। ১৯৯১ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত টানা এক দশক তিনি জাতীয় দলের সদস্য ছিলেন।

কোচিং কেরিয়ার

খেলার ছাড়ার পরই কার্লটন চ্যাপম্যান নেমে পড়েন কোচিং-এ। ২০০২ সালে টাটা ফুটবল অ্যাকাডেমি থেকে তাঁর কোচিং কেরিয়ার শুরু হয়। এছাড়াও তিনি রয়্যাল রেঞ্জার্স, রয়্যাল ওয়াহিংডো, ভবানীপুর এফসি, স্টুডেন্টস ইউনিয়ন, কোয়ার্টজ এফসির মতো একাধিক ক্লাব এবং অ্যাকাডেমিতে কোচিং করিয়েছেন ৷

ময়দানে শোকের ছায়া

চ্যাপম্যানের মৃত্যুতে ময়দানে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। কোচ সুভাষ ভৌমিক আনন্দবাজারকে জানিয়েছেন,‘‘ “খুব খারাপ ভাবে শুরু হল দিন। কার্লটন চ্যাপম্যান আর নেই। শুধু সিংহ হৃদয় ফুটবলারই ছিল না, ওর হৃদয় ছিল সোনার মতো। ওর আত্মার শান্তি কামনা করছি।”

খবর অনলাইনে আইপিএলের সব খবর পড়ুন এখানে ক্লিক করে।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন