antonio lopez habas

খবরঅনলাইন ডেস্ক: প্রথম থেকেই জয় তাঁদেরই প্রাপ্য ছিল। রবিবার ফাতোরদা স্টেডিয়ামে কেরলকে (Kerala Blasters) হারিয়ে এমনই দাবি করলেন এটিকে মোহনবাগানের (ATK Mohunbagan) কোচ আন্তোনিও লোপেজ আবাস (Antonio Lopez Habas)। তবে দু’ গোলে পিছিয়ে থেকেও যে ভাবে তাঁর দল প্রত্যাবর্তন করেছে, তাতে অসম্ভব তৃপ্ত তিনি।

এমন স্মরণীয় জয়ের রাতে সাংবাদিকদের স্প্যানিশ কোচ বলেন, “এই ফলে আমি তৃপ্ত। প্রথমার্ধে আমরা তেমন ভালো খেলতে পারিনি। তার পরে দ্বিতীয়ার্ধের ৪৫ মিনিটে আমরা দুর্দান্ত খেলেছি। আমার মনে হয় এই জয়টা অবশ্যই আমাদের প্রাপ্য ছিল।” 

Loading videos...

ম্যাচের ১৪ ও ৫১ মিনিটের মাথায় যথাক্রমে গ্যারি হুপার ও কোস্তা নহামোয়নেসুর গোলে এগিয়ে যায় ব্লাস্টার্স। ৫৯ মিনিটে সবুজ-মেরুন জার্সিতে প্রথম মাঠে নামা হোসে ব্যারেটোর দেশের স্ট্রাইকার মার্সেলো পেরেইরা বা মার্সেলিনহো গোলের লকগেট খোলেন। ৬৫ মিনিটে পেনাল্টি থেকে ও ৮৭ মিনিটে গোল করে দলকে তাদের আট নম্বর জয় এনে দেন রয় কৃষ্ণ।

দু’গোলে পিছিয়ে যাওয়ায় তাঁর দল তিন গোল দিয়ে ম্যাচ জেতে। এই ঘটনা যে কোনো কোচের কাছে কিছুটা অপ্রত্যাশতিই। আবাস বলেন, “আমার হাতে এমন দল নেই যে, প্রতি ম্যাচে ৪-৫ টা করে গোল করে ম্যাচ জিতবে। তা ছাড়া ড্র করার থেকে ১-০ গোলে ম্যাচ জেতা বেশি পছন্দ আমার। ফুটবলে ‘ব্যালান্স’ হল ম্যাজিক ওয়ার্ড। এটাই দরকার দলে। আমাদের ফলাফল নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। এক গোল দিয়ে যদি তিন পয়েন্ট পাওয়া যায়, তা হলে সেটাই আমাদের পক্ষে যথেষ্ট”।

ওডিশা এফসি থেকে ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড মার্সেলিনহো পেরেইরাকে নিয়ে এসেছেন আবাস। এ দিন সবুজমেরুন জার্সি গায়ে প্রথম মাঠে নেমেই গোল পান মার্সেলো। চলতি মরশুমে এর আগে ওডিশা এফসি-র হয়ে আটটি ম্যাচ খেলেও একটিতেও গোল পাননি তিনি।

তাঁর পারফরম্যান্সেও খুশি আবাস বলেন, “মার্সেলিনহোকে সেরা ফিরিয়ে আনতে চাই আমরা। এটাই আমাদের ভাবনা। ওর আরও সময় ও আত্মবিশ্বাস দরকার। আজ ও গোল পাওয়ায় আমাদের খুব ভালো হল। কারণ এর ফলে ও আত্মবিশ্বাস ফিরে পাবে।”

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

স্বপ্নের প্রত্যাবর্তন! দু’ গোলে পিছিয়ে থেকেও কেরলের বিরুদ্ধে অবিশ্বাস্য জয় মোহনবাগানের

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.