কালিকট: কোনো ভাবেই গোল হজম করা যাবে না। আর গোল হজম না করলে ম্যাচ জিততে যে অসুবিধা হওয়ার কথা নয়, তা তো মিনের্ভা ম্যাচেই বোঝা গেছে। কারণ এই ইস্টবেঙ্গল দলটায় গোল করার লোকের অভাব নেই। গোকুলম এফসি-র বিরুদ্ধে মাঠে নামার আগে অর্ণব-এডুদের এটাই পেপ টক দিচ্ছেন প্রবাদপ্রতিম ডিফেন্ডার মনোরঞ্জন ভট্টাচার্য।

এমনিতে গোকুলম দলে কোনো জুজু নেই। কিন্তু তারা আগের ম্যাচে মোহনবাগানকে হারিয়েছে। মাঝমাঠটা ভালো। উইং প্লেও খারাপ নয়। সঙ্গে যুক্ত হয়েছে নতুন বিদেশি। তবে এসব ভেবে খালিদের লাভ নেই। তাঁকে জিততে হবে যে করেই হোক। আগের ম্যআচে মিনের্ভাকে হারিয়ে ইস্টবেঙ্গল আই লিগে ব্যাপক ভাবে ফিরে এসেছে ঠিকই। কিন্তু শেষ চারটে ম্যাচ না জিততে পারলে কোনো লাভ হবে না।

এদিন অনুশীলনে তাই চুটিয়ে সেটপিস অভ্যাস করালেন খালিদ। খেলোয়াড়রা অত্যন্ত সিরিয়াস। বাড়তি ভরসা যোগাচ্ছেন কেরালার গোলরক্ষক উবেইদ। তাঁর পরিবারের লোকেরা শনিবার দিন মাঠে থাকবেন। দলে কোনো পরিবর্তন করতে চাইছেন না খালিদ জামিল।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here