শেষ দশ মিনিটে দুই গোল হজম, দুরন্ত লড়েও হার সুনীলদের

0

ভারত ১ (সুনীল): ওমান ২ (আল মুন্ধির)

গুয়াহাটি: ভারতীয় ফুটবলের সঙ্গে যে শব্দটি ওতপ্রোত ভাবে জড়িয়ে গিয়েছে সেটাই ফের একবার ঘুরে এল গুয়াহাটিতে। ‘স্বপ্নভঙ্গ।’ ৮০ মিনিট পর্যন্ত এগিয়ে থেকেও দু’গোল হজম করে ওমানের কাছে হেরে গেল ভারত। বিশ্বকাপের যোগ্যতা অর্জনকারী পর্বের প্রথম ম্যাচে ধাক্কা খেলেন সুনীল ছেত্রীরা।

কিন্তু কোথাও যেন ম্যাচের ফলাফলের সঙ্গে ভারতের পারফরম্যান্সের মিল খুঁজে পাওয়া যাবে না। প্রথমার্ধে ভারত যে রকম ফুটবল উপহার দিয়েছে, বিশেষজ্ঞদের মতে, অনেক বছর এ রকম খেলতে দেখা যায়নি সুনীলদের। শুরু থেকে দাপট। ওমানের অর্ধে বার বার এগিয়ে যাওয়া এবং অবশেষে গোল।

২৪ মিনিটের মাথায় ওমানের জালে বল জড়িয়ে দেন সেই সুনীল ছেত্রী। পেনাল্টি বক্সের ঠিক বাইরে থেকে ফ্রি-কিক নিতে এসে ব্যান্ডন বলটাকে সুনীলের দিকে এগিয়ে দিয়েছিলেন শুধু। সুনীল সেই সুযোগ নিয়ে বিদ্যুৎবেগে বলটাকে নিয়ে ওমানের জালে ঢুকিয়ে দেন। ওমানের রক্ষনবিভাগ কিছু বুঝে ওঠার আগেই দেখা গেল তারা গোল খেয়ে বসে আসে।

আরও পড়ুন সামনের আইপিএলে একসঙ্গে সৌরভ-অশ্বিন?

প্রথমার্ধে কিছুটা ঝিমিয়ে থাকা ওমান, দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকেই জ্বলে ওঠে। গোল না করলেও, বার বার ভারতের বক্সে ঢুকে পড়ছিল তারা। আর এখানেই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছিলেন গুরপ্রীত সিং সাঁধু। ইংল্যান্ডে ক্লাব ফুটবলের অভিজ্ঞতা থাকা সাঁধু যে কী অসাধারণ দক্ষতায় একটার পর একটা সেভ করছিলেন, তা ভাবা যায় না।

কিন্তু একটা সময়ে কিছুটা ক্লান্ত হয়ে পড়েছিলেন তিনি। আর তার সুযোগ নিয়েই ৮১ মিনিটে প্রথম গোল শোধ করে ওমান। ভারতের জালে বল ঢুকিয়ে দেন আল মুন্ধির। ওমানের হয়ে প্রথম আন্তর্জাতিক গোল তাঁর। হঠাৎ এ ভাবে গোল হজম করে হতচকিত হয়ে যায় ভারত। তখন থেকেই ভারতের খেলা দেখে আরও একটা গোল খাওয়ার আশঙ্কা করা হচ্ছিল। আর ঠিক সেটাই হল। ৮৯ মিনিটে আবার গোল করে যান মুন্ধির। হারের মুখ থেকে এসে দুরন্ত জয় পেয়ে যায় ওমান, আর ম্যাচের অধিকাংশ সময়ে এগিয়ে থেকে এ ভাবে হেরে গিয়ে সুনীলরা যে চরম হতাশ তা বলাই বাহুল্য।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন