আইএসএল ২০২১-২২: পয়েন্ট ভাগাভাগি করে নিল জামশেদপুর ও হায়দরাবাদ

0
ম্যাচের একটি মুহূর্ত। ছবি ISL Twitter থেকে নেওয়া।

জামশেদপুর এফসি ১ (গ্রেগ স্টুয়ার্ট)

হায়দরাবাদ এফসি ১ (বার্থোলোমিউ ওগবেচে)

ব্যাম্বোলিম (গোয়া): আগের ম্যাচে গত বারের চ্যাম্পিয়ন মুম্বই সিটি এফসিকে হারিয়ে তাক লাগিয়ে দিয়েছিল হায়দরাবাদ এফসি। তাই আশা ছিল, বৃহস্পতিবারও হয়তো তারা কিছু করে দেখাবে। কিন্তু এ দিন তারা জামশেদপুর এফসি-র কাছে পয়েন্ট খুইয়ে বসল।

ব্যাম্বোলিমের অ্যাথলেটিক স্টেডিয়ামে জামশেদপুর বনাম হায়দরাবাদ ম্যাচ ১-১ গোলে অমীমাংসিত থাকল। প্রতি অর্ধেই একটি করে গোল হল। ‘হিরো অব দ্য ম্যাচ’ নির্বাচিত হন জামশেদপুরের গ্রেগ স্টুয়ার্ট।

প্রথমার্ধ জামশেদপুরের

প্রথমার্ধে আধিপত্য ছিল নিঃসন্দেহে জামশেদপুরের। তারা হায়দরাবাদকে জায়গা ছাড়েনি বললেই চলে। যদিও প্রথমার্ধের ১৩ মিনিটে গোল করার প্রথম সুযোগ পায় হায়দরাবাদই। জুয়ানান জামশেদপুরের বক্সে একেবারে অরক্ষিত অবস্থায় ছিলেন। তারই ফলস্বরূপ কর্নার কিকে সহজেই হেড করার সুযোগ পান তিনি। কিন্তু তা প্রতিপক্ষের পোস্টের বাইরে দিয়ে চলে যায়।

তবুও এই অর্ধে আক্রমণের সিংহ ভাগ জুড়ে ছিল জামশেদপুর। ২০ মিনিটে স্কটিশ ফুটবলার গ্রেগ স্টুয়ার্টের শট হায়দরাবাদের পোস্টে লেগে ফিরে আসে। ৭ মিনিট পরে আর একটি আক্রমণ গড়ে তোলেন স্টূয়ার্ট। হায়দরাবাদের রক্ষণভাগের এক খেলোয়াড়ের দুর্বল পাস ধরে ফেলেন স্টুয়ার্ট। তিনি ফাঁকায় থাকা নেরিজুস ভালস্কিসকে বল পাস করে দেন। কিন্তু লিথুয়ানিয়ান ভালস্কিসের শট পোস্টের বাইরে দিয়ে চলে যায়।

শেষ পর্যন্ত স্টুয়ার্ট তাঁর পরিশ্রমের পুরস্কার পান ৪১ মিনিটে। একটা লম্বা থ্রো-ইন ধরে নিয়ে হায়দরাবাদের রক্ষণভাগের দুই খেলোয়াড়কে কাটিয়ে গোল লক্ষ্য করে যে শট নেন তা উপরের কোণ দিয়ে ঢুকে হায়দরাবাদের জালে জড়িয়ে যায়।

দ্বিতীয়ার্ধ হায়দরাবাদের

হায়দরাবাদ ম্যাচে ফেরে দ্বিতীয়ার্ধে। প্রথমার্ধের ছবিটা পালটে যায় দ্বিতীয়ার্ধে। এই অর্ধে হায়দরাবাদের আধিপত্য স্পষ্টতই বেশি ছিল। বার্থোলোমিউ ওগবেচে সক্রিয় হয়ে ওঠেন।

৪৮ মিনিটে জোয়াও ভিক্টর নাইজিরীয় ওগবেচেকে দুর্দান্ত ক্রস দেন। কিন্তু সেই বলে ওগবেচে মাথা ছোঁয়াতে পারেননি।

হায়দরাবাদের দ্বিতীয়ার্ধের আক্রমণাত্মক চেহারায় সতর্ক হয়নি জামশেদপুর। তারই ফল তারা পেয়ে যায় ৮ মিনিট পরেই। এ বারেও জোড়া ফলা – জোয়াও আর ওগবেচে। নিজেদের মধ্যে বল দেওয়া নেওয়া করতে করতে তাঁরা একেবারে জামশেদপুরের গোলমুখে চলে যান। এবং ওগবেচের শট জামশেদপুরের গোলকিপার রেহেনেশকে ফাঁকি দিয়ে গোলে ঢুকে যায়।

ম্যাচের শেষ দিকে কোনো দলই আর ঝুঁকি নিতে চায়নি। দেখে মনে হচ্ছিল, দুই দলই যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করে রণে ক্ষান্ত দিয়েছে।

৩টি খেলা থেকে ৫ পয়েন্ট সংগ্রহ করে জামশেদপুর রইল লিগ টেবিলের পঞ্চম স্থানে। আর হায়দরাবাদ সমসংখ্যক খেলা থেকে ৪ পয়েন্ট সংগ্রহ করে রইল ষষ্ঠ স্থানে।

আরও পড়তে পারেন

মুম্বই টেস্টে খেলতে পারেন ঋদ্ধিমান সাহা, বড়ো ইঙ্গিত দিলেন বিরাট কোহলি

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন