ওয়েবডেস্ক: ইতিমধ্যেই চলতি মরশুমের দ্বিতীয় দলবদলের সময়সীমা শেষ হয়ে গিয়েছে। ফের নতুন মরসুমে দলবদলের লড়াইয়ে নামবে ইউরোপের হেভিওয়েট ক্লাবগুলি। তবে এখন থেকেই খেলোয়াড়দের তালিকা কিন্তু করতে শুরু করে দিয়েছে তারা। আর সেই তালিকায় ইউরোপের প্রায় সব হেভিওয়েটের নজরেই রয়েছে পর্তুগালের তরুণ ফুটবলার জোয়াও ফেলিক্স। কে এই ফেলিক্স?

পর্তুগালের অন্যতম ঐতিহ্যপূর্ণ ফুটবল ক্লাব বেনফিকার ফুটবলার তিনি। আগামী দিনের তারকা বলা হচ্ছে তাঁকে। ১৯ বছর বয়সি এই ফুটবলার চলতি মরশুমে ৯টি লিগের ম্যাচে চারটি গোল এবং একটি অ্যাসিস্ট করেছেন। গত কয়েক বছর রীতিমতো দাপিয়ে খেলছেন বেনফিকা জার্সিতে। ২০১৫ সালে প্যাডরোনেস থেকে বেনফিকায় যোগ দেন তিনি। তার আগে ৬ বছর পর্তুগালের আরেক জনপ্রিয় দল পোর্তোর ফুটবলার ছিলেন তিনি। তাঁর প্রাইমারি পজেশন দ্বিতীয় স্ট্রাইকার। তবে অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার এবং উইঙ্গার হিসাবেও খেলতে পারেন।

felix
বেনফিকা জার্সিতে জোয়াও ফেলিক্স

ব্রাজিলিয়ান ফিলিপ কুতিনহোর খেলার সঙ্গে তাঁর অনেকটা মিল রয়েছে। খুব স্কিলফুল এবং টেকনিকালই খুব ভালো। রেয়াল মাদ্রিদ, বায়ার্ন মিউনিখ তাঁকে নিজেদের রেডারে রেখেছে। অনেকে তাঁকে নতুন ‘ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো’ তকমা দিচ্ছে।

সবচেয়ে তরুণ ফুটবলার হিসাবে লিসবন ডার্বিতে গোল রয়েছে তাঁর। খেলোয়াড়ের খুব কাছের সুত্র মারফত ইএসপিএনকে জানানো হয়েছে, তাঁকে রেডারে রেখেছে মাদ্রিদ। তবে তারা ছাড়াও, জুভেন্তাস, এসি মিলান, বার্সেলোনা, বরুশিয়া ডর্টমুন্ডও স্কাউট পাঠিয়ে তাঁকে নজরে রেখেছে। তাঁর রিলিজ ক্লজ রাখা হয়েছে ১২ কোটি পাউন্ড।

টুটোস্পোর্টকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি জানান, “মিডিয়াতে তুলনা নিয়ে কোনো নম্বর নিয়ে আমি ভয় পাইনা। আমি পেশাদারি ফুটবলার। আমার বাবা অ্যাথলেটিক্স কোচ ছিলেন। এবং আমার সম্বন্ধে ভালো মতনই জানেন। তারপর আমার কাছে বিশ্বের সেরা এজেন্ট আছে। জর্জ মেন্দেস। পর্তুগালের সব সেরা ফুটবলাররা বিশ্বের সেরা লিগ গুলিতে খেলেছেন। আমিও তাই চাই”।

তিনি আরও বলেন, “আমি ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর সঙ্গে খেলতে চাই। কারণ ও সবচেয়ে সেরা ফুটবলার। একটা আইকন। বিশ্বের আইকন। সবার কাছে উদাহরণ। ওঁর মতো দুর্দান্ত ফুটবলারের সঙ্গে খেলতে পারলে, আমি নিজেকে আরও তৈরি করতে পারবো”।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here