ron

এসি মিলান – ০                                      জুভেন্তাস – ২ 

ওয়েবডেস্ক: ফুটবলে পেনাল্টি মিস করা মানেই বিপক্ষের হাতে ম্যাচ তুলে দেওয়া। রবিবার যার প্রতিফলন ফের দেখা গেল। হাইভোল্টেজ ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল এসি মিলান ও জুভেন্তাস। লিগে নিজেদের জয়ের ধারা অব্যাহত রেখে শীর্ষস্থানে নিজেদের আসন আরও কিছুটা শক্তপোক্ত করলেন রোনাল্ডোরা। ইতালিয়ান ফুটবলে এই ম্যাচ ঐতিহ্যের ম্যাচ। বর্তমানে জুভের থেকে ধারে ও ভারে কিছুটা পিছিয়ে মিলান। তবে ঘরের মাঠে শুরুটা কিন্তু খারাপ করেননি হিগুয়েনরা। দু’দলের খেলাতেই লক্ষ্য করা গেল গতি।

তবে ৮ মিনিটের মাথায় হেডে দুর্দান্ত গোল করে জুভেকে এগিয়ে দেন মান্ডুকিচ। ব্যবধান ফের বাড়াতেই পারতেন তিনি। তবে দ্বিতীয়বার সুযোগ কার্যকর করতে পারেননি। প্রতি আক্রমণে চাপ বাড়ালেও তেমন গোল মুখ খুলতে পারেননি মিলান। অবশ্য বিরতিতে যাওয়ার মিনিট সাতেক আগে পেনাল্টি পায় তারা। বিপক্ষ খেলোয়াড়ের হাতে বল লাগলে, ভিএআরের সাহায্যে পেনাল্টি দেন রেফারি। গত বছর ছিলেন জুভে জার্সিতে। নতুন মরশুমে তাঁকে দল রাখেনি। ফলে এই ম্যাচই প্রমাণ করার ছিল মিলানের হিগুয়েনের কাছে। কিন্তু পারলেন না তিনি। তাঁর পেনাল্টি বাঁচিয়ে দেন জুভে কিপার সেজনি। ফলে বিরতিতে পিছিয়ে থেকেই শেষ করে মিলান।

বিরতির পরে শুরু থেকেই চাপ বাড়াতে থাকে মিলান। ম্যাচে বেশ নজর কাড়লেন মিলানের সুসো। কিন্তু সতীর্থদের থেকে সাহায্য না পেয়ে বড়ো একা হয়ে গেলেন। এই অর্ধে পজেশনাল ফুটবলে ম্যাচে নিয়ন্ত্রনের চেষ্টা করে জুভে। তবে জুভে খেললে শিরোনামে রোনাল্ডো থাকবেন না তাতো হয় না। এই ম্যাচেও হয়েছে। ম্যাচে শেষ ওয়ার মিনিট আটেক আগে দলের হয়ে ব্যবধান বাড়ান সি আর সেভেন। লিগে নয় ম্যাচে আট গোল হয়ে গেল তাঁর। পেনাল্টি মিস করলে যে কোনো খেলোয়াড়ের মেজাজ খারাপ হওয়ারই কথা। হিগুয়েনের ক্ষেত্রেও তাই, ফাউল করে হলুদ কার্ড দেখলেন। একইসঙ্গে রেফারির সঙ্গে বাকবিতণ্ডার জেরে সঙ্গে সঙ্গে লাল কার্ডও দেখে বসলেন।

এই হারের ফলে বেশ কিছুটা চাপে মিলানের কোচ জেনারো গাত্তুসো।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here