messi

ওয়েবডেস্ক: বিশ্বের অন্যতম তারকা ফুটবলার লিও মেসি। তাঁকে নিয়ে নতুন কিছু বলার নেই। তবে সেই মেসিই কি এই মুহূর্তে বিশ্বের আন্ডাররেটেড ফুটবলার? অনেকে হয়তো ভাবছেন এমনটা কী করে হয়? কিন্তু হতেও তো পারে।

চলতি মরশুম বার্সেলোনা জার্সিতে অধিনায়ক হিসবে ভালোই শুরু করেছেন মেসি। লা লিগা, চ্যাম্পিয়ন্স লিগ সবেতেই নিজের সেরাটা দিচ্ছেন। তবে তা কিন্তু খুব একটা খবরের শিরোনাম হচ্ছে না। যার কারণ শুধু এই মরশুমে নয়, গত এক দশক ধরে এমনটা করে চলেছেন তিনি। যা আমাদের কাছে একদমই অজানা নয়। তবে একই সঙ্গে তাঁর পারফরম্যান্স রীতিমতো দেখার মতো।

শেষ ম্যাচে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে বার্সার হয়ে গোল করেছেন এবং করিয়েছেন। ম্যাচে ২-১ ব্যবধানে পিএসভি আইন্দোভেন-কে হারায় বার্সা।

 

একই সঙ্গে লা-লিগায় আতলেতিকো মাদ্রিদের বিরুদ্ধে নিজের পায়ের জাদুও দেখিয়েছিলেন তিনি।

 

তবে নিজের পায়ের জাদু বা গোলের ক্ষুধা নয়, ধারবাহিকতা যা মেসি দেখাচ্ছেন তা খুবই দুর্দান্ত। যখন বার্সেলোনা নিজেদের একশো শতাংশ দিতে পাচ্ছে না, তখনও।

পরিসংখ্যান সাইট হু-স্কোর্ডের মতে, মেসি নিজের শেষ পাঁচটা ম্যাচে, ম্যাচ সেরার পুরস্কার পেয়েছেন। শুধু সেভিয়া ম্যাচ ছাড়া। কারণ সেই ম্যাচে তিনি চোট পেয়েছিলেন। শুধু তা-ই নয়, নিজের শেষ ১০টা ম্যাচে হয় গোল করেছেন আর না হয় গোলের রাস্তা তৈরি করে দিয়েছেন। শেষ ছয়টি ম্যাচে দশ গোল বা তাঁর সক্রিয় সাহায্য, সবই আছে।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগে যে ক’টা ম্যাচ খেলছেন তাতে সব ম্যাচেই ১০/১০ রেটিং পেয়েছেন তিনি। সোফাস্কোর অ্যাপ থেকে। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের তিনটি সপ্তাহের ম্যাচেই উয়েফার থেকে সপ্তাহের সেরা খেলোয়াড়ের তকমা পেয়েছন তিনি। চোটের জন্য বাকি কয়েকটি চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ম্যাচে দলে ছিলেন না।

চলতি মরশুমে এখনও পর্যন্ত সব টুর্নামেন্ট মিলিয়ে মাত্র দু’বারই গোল করতে বা করাতে পারেননি তিনি। ওই কয়েকটি ম্যাচে কম সময় খেলেছিলেন তিনি। বিশ্বকাপে আর্জেন্তিনা জার্সিতে একটি গোল এবং দু’টি ‘অ্যাসিস্ট’ও ছিল তাঁর।

মরশুম এখনও মাঝপথে নয়, মরশুমে শেষে কী হয় তা-তো সময়ই বলবে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here