sanchez

ম্যান ইউ – ৩                                  নিউক্যাসল – ২

ওয়েবডেস্ক: ক্রমাগত পয়েন্ট নষ্ট। গত ম্যাচে ওয়েস্ট হ্যামের কাছে হার। ফলে বিশাপ চাপের মধ্যে যে ছিলেন ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড কোচ মোরিনহো, তা প্রায় সব কাগজেরই শিরোনাম ছিল। খবরেও প্রকাশিত নিউক্যাসল ম্যচের ফল যাই হোক মোরিনহোকে আর রাখবে না ম্যান ইউ কর্তৃপক্ষ। শেষমেশ কি হবে তা-তো সময়ই বলবে। তবে ঘরের মাঠে দু’গোলে পিছিয়ে পড়েও দুর্দান্ত এই জয় অনেকদিন কিন্তু মনে রাখবে ম্যানইউ সমর্থকরা। ম্যাচের প্রায় ৭০ মিনিট পর্যন্ত পিছিয়ে থেকেও শেষমেশ জয়। অন্যতম নাটকীয় জয় বললেও কম বলা হবে।

ম্যাচের শুরুটা অবশ্য দেখে মনে হয়নি এমনটা হতে পারে। কারণ ঘরের মাঠে বেশ চাপেই ছিল ম্যান ইউ। অন্যদিকে অ্যাওয়ে ম্যাচে প্রথমার্ধে নিজের মধ্যে সংঘবদ্ধ আক্রমণে আড়াই মিনিটের মধ্যে দু’গোলে লিড নিউক্যাসেলের। সাত মিনিটের মাথায় প্রথম গোল কেনেডির। এর রেশ কাটতে না কাটতেই ফের গোল। কিছুটা ডিফেন্সের ভুলে নিউক্যাসেলের হয়ে ব্যবধান বাড়ান মুতো। হাফ চান্সে দুর্দান্ত গোল। প্রথমার্ধে ম্যানইউয়ের সুযোগ বলতে র‍্যাশফর্ডের হেডার বাইরে। এছাড়া তেমন কিছু বিপদ তৈরি করতে ব্যর্থ ম্যান ইউ।

তবে দ্বিতীয়ার্ধে শুরু থেকেই আক্রমণ মোরিনহোর ছেলেদের। ক্রমাগত আক্রমণ বাড়ালেও গোলের খাতা খুলছিলনা। অবশেষে ৭০ মিনিটে ফ্রিকিক থেকে গোল স্প্যানিশ তারকা খুয়ান মাতার। এর রেশ কাটতে না কাটতেই ফের গোল। ছয় মিনিটের মধ্যে দুর্দান্ত গোল মারশিয়ালের। এই অর্ধে নিউক্যাসল সুযোগ পেলেও বিপদ বাড়াতে পারেনি। ম্যান ইউতে তেমন সুযোগ পাচ্ছিলেন না। তবে এই ম্যাচের পর আলেক্সিস স্যাঞ্চেজকে নিয়ে কিন্তু ভাবতে হবে ম্যান ইউকে। মোরিনহো তাকে পরিবর্ত নামান। এবং ৯০ মিনিটে হেডে জয়সুচক গোল তাঁর।

এই জয়ের ফলে কিছুটা চাপমুক্ত ম্যান ইউ। লিগে অষ্টম স্থানে উঠে এলো তাঁরা। আর দুর্দান্ত জয় দিয়েই মোরিনহো বিদায় হল কিনা, তা জানা যাবে কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন