কোয়েম্বাটুর: দলের মধ্যে ফুরফুরে ভাব, অনুশীলনেও চাপমুক্ত রফিক, অর্ণব, প্লাজারা। ম্যাচের আগের দিন সকালে কোয়েম্বাটুর যুবভারতী পাবলিক স্কুলের সিন্থেটিক টার্ফে অনুশীলন করল ইস্টবেঙ্গল। অনুশীলনের শুরুতে চলে নিয়মমাফিক গার্সিয়ার অধীনে ফিজিক্যাল ট্রেনিং। পরে খালিদ জামিলের অধীনে চলে একঘন্টার বল পায়ে অনুশীলন। গোলকিপারদের নিয়ে আলাদা অনুশীলন করেন আবদুল সিদ্দিকি। ডিফেন্ডারদের সঙ্গে মাঠের মধ্যেই আলাদা মিটিং করেন খালিদ জামিল। পরে দুদলে ভাগ করে ম্যাচ খেলে লোবো, ব্র্যান্ডন, চুল্লোভারা। অনুশীলনের শেষলগ্নে সিটপিস ও কর্নারের উপর বাড়তি জোর দেন লালহলুদ কোচ।  হোটেলে ফিরে চলে ফুটবলারদের নিয়ে কোচের ভিডিও ক্লাস। বিকেলে জহরলাল স্টেডিয়ামের মাঠ দেখতে যান খালিদ জামিল।

আরও পড়ুন: আমি,কাতসুমি,প্লাজা অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠব: আল আমনা

বিকেলে সাংবাদিক সন্মেলনে কোচ বলেন, ‘ এখন সব ম্যাচই আমাদের কাছে গুরত্বপূর্ণ। আগের ম্যাচেই ওরা জিতেছে। এরকম দলকে হারানো কঠিন। ওরা নিজেদের মাঠে খেলবে। আমরাই চাপে থাকব।’ চেন্নাই প্রসঙ্গে খালিদের আরও সংযোজন, ‘ ওদের দলের বিদেশিরা ভাল। আমি ওদের খেলা দেখেছি। ওরা শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত লড়াই করে’। নিজের দল সম্পর্কে  বলেন, ‘ প্লাজা গোলে ফিরেছে।বাকিরাও অনুশীলনে বাড়তি তাগিদ দেখাচ্ছে। আমার দলে সকলেই ফিট। প্রথম একাদশ বাছা কঠিন। ম্যাচের দিন সকালে ঠিক করব, তবে আমার দল তৈরি। মাঠে ভাল লড়াই হবে’।  মোহনবাগানের ড্রয়ের প্রসঙ্গে লালহলুদ কোচের সহাস্য মন্তব্য, ‘ নিজেদের নিয়ে ভাবতেই সময় চলে যাচ্ছে। অন্যরা কি করছে, তা নিয়ে ভাবছি না’।

সাংবাদিকদের প্রশ্নে  প্লাজা বলেন, ‘ দল জিতেছে , এতেই আমার আত্মবিশ্বাস বেড়েছে। তিনপয়েন্ট পাওয়াটাই  আসল লক্ষ্য। অ্যাওয়ে ম্যাচে পুরো পয়েন্ট পেলে আমরা লিগ টেবিলের সুবিধাজনক জায়গাতে চলে যাব। দলের সকলেও ফোকাসড’।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here