ballondor-ranking

ওয়েবডেস্ক: শেষ দশ বছরে বিশ্ব ফুটবল মানে মেসি এবং রোনাল্ডো। পাঁচ বার করে ব্যালন ডি’ওর জিতেছেন এই দুই মহারথী। তবে এই মরশুমে তাঁরা কিন্তু কিছুটা চাপে। কারণ শুধু দু’জনের মধ্যেই সীমাবদ্ধ নেই এই মরশুমের ফুটবল। সালাহ থেকে শুরু করে ডি ব্রুইন, সবাই একে অপরকে ছাপিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছেন। শেষমেশ কার মাথায় ব্যালন ডি ওরের খেতাব ওঠে সে তো সময়ই বলবে।

তবে এই মুহূর্তে ফর্মের বিচারে ব্যলন ডি ওর র‍্যাঙ্কিংয়ে কারা এগিয়ে কারা পিছিয়ে তা একবার দেখে নেওয়া যাক।

১। মহম্মদ সালাহ

এই মুহূর্তে নিজের সেরা ফর্মে রয়েছেন সালাহ। ইংল্যান্ড লিগে সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। যদি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনালে নিজের দল লিভারপুলকে জয় এনে দিতে পারেন এবং বিশ্বকাপে নিজের দেশ মিশরকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারেন, তা হলে ব্যালন ডি’ওর খেতাবের প্রধান দাবিদার হয়ে উঠবেন তিনি।

salah-final

২। ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডো

এই মুহূর্তে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শীর্ষ গোলদাতা তিনি। যদি ফাইনালে রেয়াল মাদ্রিদকে পর পর তিন বার চ্যাম্পিয়ন্স লিগ এনে দিতে পারেন এবং আসন্ন বিশ্বকাপে নিজের পর্তুগালকে সাফল্যের চূড়ায় পৌঁছে দিতে পারেন, তা হলে প্রথম খেলোয়াড় হিসাবে ষষ্ঠ বার এই খেতাব পাবেন সি আর সেভেন।

ronaldo-final

৩। লিয়োনেল মেসি

ইতিমধ্যেই লা লিগা চ্যাম্পিয়ন হয়ে গিয়েছে বার্সেলোনা। তবে ঘরোয়া লিগে ভালো ফর্ম জারি থাকলেও, ইউরোপিয়ান সার্কিটে তেমন ফর্ম নেই মেসির। যদি আসন্ন বিশ্বকাপে আর্জেন্তিনা দলের হয়ে সাফল্যের মুখ দেখতে পারেন, তা হলে ব্যালন ডি ওর র‍্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষ স্থানে উঠে আসতে পারেন।

messi-final

৪। রবার্ট লিওনডোস্কি

নিজের ক্লাব বায়ার্ন মিউনিখের হয়ে ইতিমধ্যেই জার্মান লিগ জিতেছেন তিনি। তবে চলতি সময়ে নিজের ফর্মের ধারে কাছে নেই তিনি। আসন্ন বিশ্বকাপে যদি পোল্যান্ডের হয়ে ভালো কিছু করতে পারেন, তা হলে পাওয়ার র‍্যাঙ্কিংয়ে উন্নতি করতে পারেন তিনি।

lewandowski-final

৫। কেভিন ডি ব্রুইন

এই মরশুমে ইপিএলে অন্যতম সেরা খেলোয়াড় তিনি। নিজের দল ম্যাঞ্চেস্টার সিটির হয়ে ইতিমধ্যেই জিতেছেন লিগ। যদি বিশ্বকাপে নিজের দেশ বেলজিয়ামের হয়ে আশাপ্রদ খেলতে পারেন, তা হলে নিজেকে ব্যালন ডি ওর র‍্যাঙ্কিংয়ে আরও উন্নত করতে পারবেন।

debruyne-final

৬। এডিনসন কাভানি

নিজের কাঁধে ভর করে একাই প্যারিস সাঁ জা-কে ফরাসি লিগে চ্যাম্পিয়ন করেছেন তিনি। আসন্ন বিশ্বকাপে উরুগুয়ের হয়ে বিশ্বকাপে নিজেকে ফের প্রমাণ করার লক্ষ্যে নামবেন কাভানি। যদি নিজের নামের প্রতি সুবিচার করতে পারেন তা হলে র‍্যাঙ্কিংয়ে নিজেকে আরও এগিয়ে নিয়ে যেতে পারবেন।

cavani-final

৭। হ্যারি কেন

এই মরশুমে বিশ্বের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় তিনি। নিজের দল টটেনহ্যাম হটস্পারের ধারাবাহিক ভালো ফর্মে তাঁর অবদান অনস্বীকার্য। তবে আসন্ন বিশ্বকাপে তাঁর ফর্মের উপরেই ইংল্যান্ড দলের ভাগ্য নির্ধারণ হবে। নিজের ফর্ম অব্যাহত রাখলে পাওয়ার র‍্যাঙ্কিংয়ে আরও উন্নতি করতে পারবেন হ্যারি।

kane-final

৮। লুইস সুয়ারেজ

এই মরশুমে বার্সেলোনা দলের অন্যতম সেরা খেলোয়াড়। মেসির পাশাপাশি বার্সেলোনা দলে তাঁর অবদানও অনস্বীকার্য। আসন্ন বিশ্বকাপ তাঁর দিকে তাকিয়ে থাকবেন উরুগুয়ের সমর্থকরা। বিশ্বকাপের পারফর্মেন্স উন্নতি ঘটাতে পারলে তাঁর ব্যালন ডি ওর র‍্যাঙ্কিংয়েও উন্নতি ঘটবে।

luiss-suarez

৯। টের স্টেগান

এই মুহূর্তে বিশ্বের অন্যতম শ্রেষ্ঠ গোলকিপার। এই মরশুমে বার্সেলোনার লিগ জয়ের অন্যতম কারিগর ইনি। আসন্ন বিশ্বকাপে যদি জার্মান দলের হয়ে নিজের সেরা পারফর্মেন্স ধরে রাখতে পারেন, তা হলে র‍্যাঙ্কিংয়ে নিজেকে আরও এগিয়ে নিয়ে যেতে পারবেন।

stegan-final

১০। কেইলর নাভাস

রেয়াল মাদ্রিদে ধারাবাহিক ভাবে ভালো খেলছেন। গত পাঁচ বছরের মধ্যে চার বার রেয়ালের চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনালে খেলার অন্যতম কারণ নাভাস। আসন্ন বিশ্বকাপে নিজের দেশ কোস্টারিকার হয়ে নিজের সেরাটা দিতে পারলে র‍্যাঙ্কিংয়ে আরও এগিয়ে নিয়ে যাবেন নাভাস।

navas-final

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here