mdsfinal

মহামেডান – ১                                  রেইনবো – ০

ওয়েবডেস্ক: জয়ে ফিরল মহামেডান স্পোর্টিং। শনিবার বারাসতে কলকাতা লিগের ম্যাচে তারা হারাল রেইনবোকে। অবশ্য এ দিনের ম্যাচে কিন্তু নজরকাড়া পারফরমেন্স রেইনবোরই। সত্যি কপাল খারাপ তাদের। সবই করল তারা কিন্তু গোল পেল না। অবশ্য প্রথমার্ধের তুলনায় দ্বিতীয়ার্ধের খেলায় ছিল বেশি স্বাছন্দ। প্রথমার্ধে মহামেডান গতিকে সম্বল করে আক্রমণে ঝাঁজ বাড়ালেও তেমন কোনো ফিনিশিং ছিল না। কিছুটা বিরক্তিকর ফুটবলের নিদর্শন। কারণ স্ট্রাইকার এমেকার ছন্নছাড়া ফুটবল। ঠিক মতো বল ট্রাপই করতে পারলেন না। তবে রেইনবোর ডিফেন্সও ছিল জমাটি। সঙ্গে প্রতি-আক্রমণে বিপক্ষ বক্সে হামলা। ফের নজর কাড়লেন তাদের বঙ্গতনয় সুজয়। এ দিন ফের গোল করতে পারতেন মহামেডানের প্রসেনজিত। কিন্তু মাথায় বলে ঠিক সময় সংযোজন করতে ব্যর্থ হন। বিরতিতে যাওয়ার আগে গোল পেয়েই যেতেন মোহনবাগানের বিরুদ্ধে গোল করা রেইনবোর সান্ডে। কিন্তু তাঁর গোলমুখ শট বাঁচান মহামেডান গোলকিপার প্রিয়ান্থ।

দ্বিতীয়ার্ধে শুরু থেকেই আক্রমণ দু’দলের। অনেকটা ওপেনিং খেলার সাক্ষী থাকল উপস্থিত দর্শকেরা। অবশ্য মহামেডানের থেকেও রেইনবোর তাগিদটা কিন্তু বেশি লক্ষ্য করা যাচ্ছিল। ৫০ মিনিটে সান্ডে সুযোগ পেলেও কার্যকর করতে পারেননি। এই হাফে রেইনবোর হয়ে দৃষ্টিনন্দন ফুটবল খেললেন ভারতের মাটিতে অন্যতম অভিজ্ঞ বিদেশি পেন ওরজি। তাঁর গড়ানে শট বিপক্ষ বক্সে বিপদ ফেলতেই পারতো। তবে এরই মাঝে নিজেদের কাঙ্ক্ষিত গোল কিন্তু তুলে নেয় মহামেডান। ৭৬ মিনিটে পরিবর্ত খেলোয়াড় সুমিত দাসের ডান পায়ের চকিতে নেওয়া দুর্দান্ত শটে ম্যাচে লিড তাদের। পিছিয়ে পড়ে সমতা ফেরানোর জন্য চাপ বাড়ালেও শেষমেশ গোলমুখ খুলতে ব্যর্থ রেইনবো।

ফলে লিগে দ্বিতীয় জয় পেয়ে আপাতত কিছুটা চাপমুক্ত মহামেডান।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন