mdsfinal

মহামেডান – ০                             জর্জ টেলিগ্রাফ – ০

ওয়েবডেস্ক: মহামেডান মাঠে ফ্লাড লাইট জ্বললেও, খেলায় কিন্তু তার উজ্জ্বলতা চোখে পড়ল না। ফের পয়েন্ট নষ্ট তাদের। জর্জের বিরুদ্ধে ড্র। ম্যাচের শুরু থেকে জেতার সেই তাগিদতাই লক্ষ করা গেল না। খেলায় গতি থাকলেও, তা ঠিক মতো কাজে লাগাতে ব্যর্থ সাদাকালো বাহিনী। অর্থাৎ সুযোগ কার্যকর করা। প্রথমার্ধে বিরক্তিকর ফুটবল। যা দেখে দর্শকদের হতাশ হওয়াটাই স্বাভাবিক। বিপক্ষকে চাপে রেখে অনেক শট নিল মহামেডান। তবে সবটাই গগনমুখি।

সুযোগ বলতে পাঁচ মিনিটে সত্যমের ফ্রিকিক। ডিফেন্ডারের গায়ে লেগে তা দিক পরিবর্তন করলেও তা থেকে বিপদ হতে দেননি জর্জ গোলকিপার। নিজেদের পুঁজি মতো কিন্তু লড়াই করে গেল জর্জ। প্রথমার্ধে খেলার বিপক্ষে তারা এগিয়েই যেতে পারতো। ২১ মিনিটে ময়দানের পোড়খাওয়া খেলোয়াড় শুভকুমারের ফ্রিকিক পোস্টে লেগে প্রতিহত হয়। তবে এদিনও কিন্তু ব্যর্থ মহামেডানের বিদেশি স্ট্রাইকার এমেকা। ডাহা ফেল। ফলে বিরতিতে গোলশূন্য।

দ্বিতীয়ার্ধে শুরু থেকে কিছুটা চাপ বাড়াতে থাকে মহামেডান। পাঁচ মিনিটের মাথায় গোলকিপারকে একা পেয়ে গিয়েছিলেন এমেকা। কিন্তু তা বাঁচিয়ে দেন জর্জ কিপার লাল্টু। এদিন সারা ম্যাচে নজর কাড়লেন তিনি। দলে কিছুটা গতি আনার জন্য মহামেডান কোচ মাঠে নামান গত ম্যাচের নায়ক সুমিত দাসকে। ফের নায়ক হয়ে যেতে পারতেন সুমিত। কিন্তু ৭৬ মিনিটে গোলকিপারকে একা পেয়েও সুযোগ কাজে লাগাতে ব্যর্থ তিনি। এইবারও নিজের দক্ষতার প্রমাণ রাখেন লাল্টু। চোট আঘাতের জন্য অতিরিক্ত সাত মিনিট দেওয়া হলেও কাঙ্খিত গোলের মুখ দেখতে ব্যর্থ হয় সাদাকালো বাহিনী।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন