md-sprotyong

মহামেডান – ১                              এফ সি আই – ০

ওয়েবডেস্ক: কলকাতা লিগে জয় দিয়ে শুরু মহামেডান স্পোর্টিংয়ের। রবিবার বারাসাত স্টেডিয়ামে বঙ্গতনয় প্রসেনজিতের গোলে তাঁরা হারাল এফসিআইকে। তবে এদিনের ম্যাচে সাদাকালো বাহিনীর খেলা কিন্তু অনেকটাই বিরক্তিকর। অন্তত প্রথমার্ধের খেলা দেখলে তা ভাল মতনই স্পষ্ট। প্রথম ম্যাচে জড়তা সব দলেই থাকে। কিন্তু মাঠে গিয়ে বা টিভির পর্দায় যারা খেলা দেখেছেন তারা নিশ্চয়ই কিছুটা হয়তো ধৈর্য হারিয়েছেন। স্ট্রাইকার এমেকাকে দেখলে এটা স্পষ্ট যে নিজেকে সম্পূর্ণ মেলে ধরতে তাঁকে এখনও অনেক কালঘাম ঝরাতে হবে।

তবে বড়ো দলের জার্সি যখন গায়ে থাকে তখন একটা চাপ তো থাকেই। আর সেই চাপ-কে সঙ্গে নিয়েই আক্রমণে এগোতে থাকে মহামেডান। বিদেশিরা নজর কাড়তে ব্যর্থ হলেও, নজর কাড়লেন দেশিরা। দীপঙ্কর দুয়ারি এবং আমিরুল। প্রথমার্ধে এমেকা যদি বল ঠিক মতো ট্র্যাপ করতে পারতেন তাহলে বিপদ হলেও হতে পারতো।

দ্বিতীয়ার্ধে অবশ্য শুরু থেকেই আক্রমণে লোক বাড়ায় রঘু নন্দীর ছেলেরা। ফের ব্যর্থ সেই এমেকা। এদিন সাদাকালো জার্সিতে সারা ম্যাচ লড়ে গেলেন গোলদাতা প্রসেনজিত। পনেরো মিনিটের মধ্যে তাঁর গোলমুখ শট বাঁচিয়ে দেন দেন বিপক্ষ গোলকিপার। সুযোগ পেয়েছিলেন আমিরুলও। কিন্তু ঠিক সময় মাথায়-বলে সংযোগ করতে ব্যর্থ হন তিনি। কিছুটা খোলস ছেড়ে বেড়িয়ে আসে এফসিআইও। তবে তেমন কোনো বিপদ হয়নি। তবে ক্রমাগত চাপ বাড়ানোর ফসল অবশেষে পেয়ে যায় মহামেডান। ম্যাচ শেষ হওয়ার মিনিট দশেক আগে নিজের একক দক্ষতায়, বাঁ পায়ে চকিতে নেওয়া শটে মহামেডান গ্যালারিতে স্বস্তির বাতাস নিয়ে আসেন প্রসেনজিত।

বড়ো দলের হয়ে প্রথম ম্যাচে জয় পাওয়ায় হাঁফ ছাড়লেন কোচ রঘু নন্দীও।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here