কলকাতা: এই ২০১৮ সালে, তথ্য বিস্ফোরণের যুগেও যে এমন ঘটনা ঘটতে পারে, তা ভাবা যায় না। ন্যক্কারজনক ইতিহাস তৈরি হল কলকাতা ময়দানে। মহামেডান বনাম কাস্টমসের খেলা দেখতে এসে প্রায় একশো সমর্থক জানতে পারলেন খেলা বাতিল। সকলেই এসেছিলেন বারাসত-বসিরহাট থেকে গাড়ি ভাড়া করে। খেলা নেই শুনে ক্লাবের গেটের সামনে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন তাঁরা। বিক্ষোভের জেরে আটকে পড়েন অনুশীলনে আসা ফুটবলার ও কোচ রঘু নন্দী। ঘটনার সময়ে মহামেডান মাঠে অনুশীলন চলছিল।

আসল ঘটনাটা কী?

বকরি ঈদের জন্য ক্লাবে একদিন ছুটি। তাই লিগের একটি ম্যাচ পিছিয়ে দেওয়ার আবেদন জানিয়েছিল মহামেডান। সেই আবেদন মেনে দুদিন আগেই এদিনের ম্যাচ বাতিলের সিদ্ধান্ত নেয় আইএফএ। কিন্তু সেই খবর না জেনেই মাঠে চলে এসেছিলেন সমর্থকরা।

মহামেডান কর্তারা দুষছেন সংবাদ মাধ্যমকে। তাঁদের বক্তব্য, ডার্বির আগের মোহনবাগানের ম্যাচ একদিন এগিয়ে আসার খবর গুরুত্ব দিয়ে প্রকাশিত হলেও, মহামেডান ম্যাচ বাতিলের খবর প্রকাশিত হয়নি। অথচ দুটি সিদ্ধান্ত একই দিনে জানিয়েছিল আইএফএ। কিন্তু তাঁরা যাই বলুন, এদিনের ঘটনায় স্পষ্ট, ক্লাবের ক্ষমতা হাতে রাখতে তাঁরা যতটা আগ্রহী, সমর্থকদের সঙ্গে সম্পর্ক রক্ষায় তার কানাকড়িও নয়। সে জন্যই সংবাদ মাধ্যমের ওপর দায় চাপিয়ে হাত ঝেড়ে ফেলতে হচ্ছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন