মোহনবাগান-৩ (ডিকা, আজহারউদ্দিন, লালনুন ফেলা)      টালিগঞ্জ অগ্রগামী-০ 

কলকাতা: আগের দিনই কোচ শঙ্করলাল বলেছিলেন পিয়ারলেস ম্যাচের যভুলত্রুটি দূর করার জন্য নতুন ছকে দলকে খেলাবেন, দলে কিছু পরিবর্তন করবেন। সেই মতো এদিন ৪-৪-২ ছকে খেলে টালিগঞ্জকে নাস্তানাবুদ করে ছেড়ে দিল মোহনবাগান। ৯০ মিনিট ধরে আক্রমণাত্মক ফুটবলের ঢেউ তুললেন ডিকা-আজহার-ব্রিটোরা। কিন্তু গোলের সংখ্যা আটকে রইল তিনেই।

এদিন ম্যাচের ২৮ মিনিটে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন ডিকা। ৩৪ মিনিটে ব্যবধান বাড়ান আজহারউদ্দিন। দ্বিতীয়ার্ধ জুড়ে চলতে থাকে গোল নষ্টের প্রদর্শনী। একের পর এক আক্রমণে টালিগঞ্জের রক্ষণ এমনকী গোলরক্ষককে পরাস্ত করেও গোল মিসের বন্যা বইয়ে দেন ডিকা-আজহার-ব্রিটেরা। দুরন্ত গতি আর শক্তির মিশেলে এদিন নজর কাড়লেন কেরালার ২৫ বছরের তরুণ ব্রিটো। এই মরশুমে তিনি বাগানের সম্পদ হয়ে উঠতে পারেন। গোল না পেলেও সারা ম্যআচেতিনি চোখে পড়েছেন। ৮১ মিনিটে তাঁকে তুলে শঙ্করলাল লালনুন ফেলাকে নামানোর ১ মিনিটের মধ্যেই তিনি গোল পেলেন।

মোহনবাগান সমর্থকদের ওড়ানো ফানুস, সৌজন্য: সাধনা নিউজ

ভাইকিং ক্ল্যাপ আর ফানুসে এদিন নজর কাড়লেন বাগান সমর্থকরাও। তবে তার মধ্যেও ২ জন সমর্থক গ্রেফতার হলেন গ্যালৱারিতে বসে মদ্যপানের জন্য।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন