এসসি ইস্টবেঙ্গল ২ (স্টাইনমান, পিলকিংটন) জামশেদপুর এফসি ১ (হার্টলি)

খবরঅনলাইন ডেস্ক: পাঁচ ম্যাচের পর ফের জয়ে ফিরল ইস্টবেঙ্গল। এবং এই জয় বেশ গুরুত্বপূর্ণ। এই জয়ের ফলে এ বারের আইএসএল-এ (ISL 2020-21) এখনও শেষ চারে যাওয়ার আশা জিইয়ে রাখল তারা।

রবিবার ফাতোরদা স্টেডিয়ামে আয়োজিত ম্যাচে এসসি ইস্টবেঙ্গল (SC East Bengal) ২-১ গোলে হারাল জামশেদপুর এফসিকে (Jamshedpur FC)। ম্যাচের প্রতি অর্ধে ১টি করে গোল করে ইস্টবেঙ্গল। একেবারে শেষ দিকে ১টি গোল শোধ করে জামশেদপুর।

গোল পেল ইস্টবেঙ্গল

ম্যাচের শুরুতেই গোল করার সুযোগ পেয়েছিল জামশেদপুর এফসি। কিন্তু ফ্রি-কিক থেকে নেরিজুস ভালস্কিসের শট ইস্টবেঙ্গলের ক্রসবারের উপর দিয়ে চলে যায়।

এর পর ম্যাচের রাশ ধীরে ধীরে ইস্টবেঙ্গলের হাতে চলে যায়। ৬ মিনিটেই গোল পেয়ে যায় ইস্টবেঙ্গল। নারায়ণ দাসের কর্নার কিক থেকে দুর্দান্ত হেড করে জামশেদপুরের জালে বল জড়িয়ে দেন জার্মান প্লেয়ার মাট্টি স্টাইনমান।

প্রথমার্ধে জামশেদপুর খুব একটা বেশি ইস্টবেঙ্গলের বক্সে ঢুকতে পারেনি। এর কৃতিত্ব মূলত মুম্বই সিটি এফসি থেকে আসা সার্থক গলুইয়ের।

৪২ মিনিটে গোল করার সুবর্ণ সুযোগ পেয়েছিল ইস্টবেঙ্গল। খুব কাছ থেকে গোল লক্ষ্য করে শট নেন ব্রাইট এনোবাখারে। জামশেদপুরের ডিফেন্ডারের গায়ে লেগে বল চলে আসে জ্যাক মাঘোমার কাছে। কিন্তু মাঘোমার শটও কোনো রকমে গায়ে লাগিয়ে বাঁচান জামশেদপুরের ডিফেন্ডার।

দ্বিতীয়ার্ধে সমানে সমানে

দ্বিতীয়ার্ধে জামশেদপুর কিছুটা ভালো খেলে গোল করার সুযোগ তৈরি করার চেষ্টা করে। কিন্তু এরই মধ্যে ৬৮ মিনিটে দ্বিতীয় গোল পেয়ে যায় ইস্টবেঙ্গল। প্রতি-আক্রমণে বল নিয়ে দুর্দান্ত দৌড়ে অনেকটা এগিয়ে যান, বল দেন পিলকিংটনকে। পিলকিংটন গোটা কয়েক ছোট্ট টাচে জামশেদপুরের ডিফেন্ডারদের কাটিয়ে খুব সরু কোণ থেকে বল ঠেলে দেন গোলে।

শেষ পর্যন্ত ৮৩ মিনিটে জামশেদপুরের হয়ে ১টি গোল শোধ করেন পিটার হার্টলি। কর্নার থেকে আইটর মনরয় ছোট্ট পাস দেন বনমলসাওমাকে। বনমলসাওমা ইস্টবেঙ্গলের বক্সে ক্রস পাঠান। সেই ক্রস থেকে হার্টলি হেড করে গোল করেন।

এ দিনের পর ১৬টি ম্যাচ থেকে ১৬ পয়েন্ট সংগ্রহ করে এসসি ইস্টবেঙ্গল লিগ টেবিলে উঠে এল নবম স্থানে। সমসংখ্যক খেলায় ১৮ পয়েন্ট সংগ্রহ করে জামশেদপুর এফসি থাকল সপ্তম স্থানে।  

হায়দরাবাদ বনাম নর্থইস্ট গোলশূন্য  

রবিবার ভাস্কোর তিলক ময়দানে আয়োজিত আইএসএল-এর দ্বিতীয় ম্যাচে গোলশূন্য ড্র হল হায়দরাবাদ এফসি (Hyderabad FC) বনাম নর্থইস্ট ইউনাইটেডের (NorthEast United FC) খেলা। দু’টি দলই গোল করার সুযোগ পেয়েছে। তবে তাঁকে হাফ-চান্স বলা যায়। সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে কেউই অচলাবস্থা ভাঙতে পারেনি।

বল দখলে রাখার ব্যাপারে হায়দরাবাদ এগিয়ে ছিল নর্থইস্টের চেয়ে এবং গোলে শট নেওয়ার হিসাবেও। হায়দরাবাদ গোল লক্ষ্য করে ৩টি শট নিয়েছিল, নর্থইস্ট ২টি।

এ দিনের ম্যাচের পর দু’টি দলই লিগ টেবিলে আগের অবস্থানেই রইল। হায়দরাবাদ তৃতীয় স্থানে এবং নর্থইস্ট চতুর্থ স্থানে।     

আরও পড়ুন: টেনিস কিংবদন্তি আখতার আলি প্রয়াত 

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন