কলকাতা: সঞ্জয় সেন পদত্যাগ করার ফলে শূন্য হওয়া জায়গাটা তাঁর সহকারীকে দিয়েই ভরাট করল মোহনবাগান। বুধবার ক্লাবের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হল এই সিদ্ধান্ত। পাশাপাশি জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, বৃহস্পতিবার থেকেই আনুষ্ঠানিক ভাবে দলের দায়িত্ব নেবেন শঙ্করলাল। বৃহস্পতিবার অনুশীলন শেষ হওয়ার পর হেড কোচ হিসেবে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হবেন তিনি।

পাশাপাশি ক্লাবের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, গোলকিপার কোচ অর্পণ দে যেমন ছিলেন, থাকছেন। শঙ্করলাল যদি কোনো সহকারী চান, তাঁকে পরে যুক্ত করা হবে। ২০১৪ সালের জুলাই মাস থেকে মোহনবাগান ক্লাবের সহকারী কোচের দায়িত্ব সামলাচ্ছেন শঙ্করলাল। এই মরশুমে কলকাতা লিগে তিনিই ছিলেন কোচের দায়িত্বে।

আলেক্সি পাপাস, ওয়েস্টউডের মতো বিদেশি কোচের নাম ছিল সম্ভাবনায়। কিন্তু সে পথে হাঁটেননি বাগান কর্তারা। কারণ এখন আই লিগে টানা ম্যাচ। এই অবস্থায় নতুন কোচের পক্ষে দায়িত্ব নিয়ে ভালো কিছু করা কঠিন। তার উপর শঙ্করলাল গোটা দলটাকে হাতের তালুর মতো চেনেন।

এবং সবচেয়ে বড়ো কথা, শঙ্করলাল এখনও কোচ হিসেবে ময়দানে প্রতিষ্ঠিত নন। তাঈই তাঁর ওপর ছড়ি ঘোরানোর কাজটা করতে আপাতত অসুবিধা হবে না শতাব্দীপ্রাচীন ক্লাবের কর্তাদের। যেটা পারছিলেন না বলেই সঞ্জয় সেনকে নিয়ে অস্বস্তিতে ছিলেন তাঁরা। বিপুল সাফল্য সত্ত্বেও পরপর তিনটি ড্র করাতেই কোচ বদলের হাওয়া তুলে দেওয়া হয়েছিল। যাতে বিরক্ত সঞ্জয় নিজেই সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলছিলেন চেন্নাই ম্যাচে এদিক ওদিক হলেই পদত্যাগ করার। এটা ঠিক যে সঞ্জয় সেনের উপর বাগান কর্তারা পদত্যাগ করার জন্য কোনো চাপ দেননি। আবার এটাও ঠিক, কোচ বদলের হাওয়া তৈরি হওয়ার পর টানা ছয় ডার্বিতে অপরাজিত কোচের পাশেও থাকেননি। ঘুর পথে তাঁর পদত্যাগের পথ প্রশস্ত করেছেন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here