footballcover

ওয়েবডেস্ক: বিশ্বের যে কোনো ক্রীড়াতে দেখতে পাওয়া যায় এক সঙ্গে দু’ভাই দেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করছে। দেশকে সাফল্য এনে দিচ্ছে। ফুটবলেও যা স্বাভাবিক। কিন্তু তাই বলে দুই ভাই খেলছেন আলাদা দেশের হয়ে! হ্যাঁ, ফুটবলে এমনটাও সম্ভব। যার কারণ হিসাবে দেখা যায়, ফুটবল সংস্থার কিছু নিয়মাবলি অথবা তাঁরা নিজেরাই চেয়েছেন অন্য দেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করতে। খুঁজলে এমন অনেক ঘটনা দেখা যায় বিশ্ব ফুটবলে।

জেনে নিন এমনই পাঁচ ভাইদের কথা যারা আলাদা দেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেছেন।

১। টিম কাহিল এবং ক্রিস কাহিল

অস্ট্রেলিয়া ফুটবলে সর্বকালের সেরা খেলোয়াড় বলা হয় টিম কাহিলকে। দেশের সর্বোচ্চ গোলদাতা তিনি। ইপিএলে এক সময় দাপিয়ে খেলেছেন তিনি। এভারটন দলের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় বলা হয় তাঁকে। দেশের হয়ে ১০৩ ম্যাচে ৫০ গোল রয়েছে তাঁর ঝুলিতে। তবে তাঁর ভাই ক্রিসের কেরিয়ার তেমন উজ্জ্বল নয়। অস্ট্রেলিয়ার নীচের সারির দলগুলিতে খেলেছেন। তবে এই মুহূর্তে সামোয়া জাতীয় দলের সদস্য তিনি।

cahill-brothers

২। গ্রানিট জাকা এবং টউলন্ট জাকা

২০১৬ সালে ইউরোপিয়ান কাপে একে অপরের মুখোমুখি হন এই দুই ভাই। এই মুহূর্তে সুইৎজারল্যান্ড দলের অন্যতম চর্চিত খেলোয়াড় গ্রানিট জাকা। ইপিএলে আর্সেনাল দলের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় তিনি। তবে তিনি নাকি আলবেনিয়ার হয়ে খেলতে চেয়েছিলেন এমনটাই শোনা যায়। কিন্তু সে দেশের ফুটবল সংস্থা তাঁকে সুযোগ দেয়নি। ফলে এখনও পর্যন্ত ৫৫ বার সুইজারল্যান্ডের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেছেন। অন্য দিকে ভাই গ্রানিটের কথায় সুইৎজারল্যান্ডের বদলে ২০১৩ সালে আলবেনিয়া জাতীয় দলের হয়ে খেলা শুরু করেন টউলন্ট। তবে ক্লাব ফুটবলে তাঁর দল কিন্তু সুইৎজ্যারল্যন্ডের এফসি বাসেল।

xhakas-brothers

৩। ক্রিস্টিয়ান ভিয়েরি এবং ম্যাসিমিলিয়ানো ভিয়েরি

ইন্টার মিলানের আইকন বলা হয় ক্রিস্টিয়ান ভিয়েরিকে। ক্লাবের হয়ে ১৪৩ ম্যাচে ১০৩ গোল রয়েছে তাঁর। এ ছাড়াও জুভেন্তাস ও আতলেতিকো মাদ্রিদেও খেলেছেন ফুটবল। ইতালির জাতীয় দলের হয়েও করেছেন প্রতিনিধিত্ব। তাঁর ভাই ম্যাসিমিলিয়ানো বেশির ভাগ সময়টাই ইতালির দ্বিতীয় ডিভিশনে কাটিয়েছেন। কিন্তু ইতালি জাতীয় দলে তেমন সুযোগ পাচ্ছিলেন না। তবে ২০০৪ সালে তিনি ডাক পান অস্ট্রেলিয়ার জাতীয় দলে। ফলে আন্তর্জাতিক মঞ্চে খেলার সুযোগ হাতছাড়া করেননি তিনি। ক্রিস্টিয়ান নিজেও অস্ট্রেলিয়ার জাতীয় দলে সুযোগ পেলেও খারিজ করে দেন।

vieris-brothers

৪। থিয়াগো আলকান্তরা এবং রাফিনহা আলকান্তরা

বার্সেলোনার যুব দল থেকে খেলা শুরু করেন দুই ভাই। বড়ো ভাই থিয়াগো, পেপ গুয়ারদিওলার বার্সেলোনা দলের অন্যতম নিয়মিত খেলোয়াড় ছিলেন। এই মুহূর্তে জার্মান দল বায়ার্ন মিউনিখ দলের অন্যতম ভরসা তিনি। এ ছাড়াও স্পেন জাতীয় দলের হয়েও খেলেছেন তিনি। তাঁর ভাই রাফিনহাও বার্সেলোনার যুব এবং সিনিয়র দলের হয়ে খেলেছেন। স্পেনের যুব দলের হয়ে খেলা শুরু করলেও, ব্রাজিল জাতীয় দলের হয়ে দু’বার প্রতিনিধিত্ব করেছেন। তাঁর কথায়,”যে হেতু আমি সাও-পাওলোতে জন্মেছিলাম এবং বাবাও ব্রাজিলের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেছেন, তাই সিদ্ধান্ত নেওয়াটা খুবই সহজ ছিল”।

alcantras-brothers

৫। মাথিয়াস পোগবা, ফ্লোরেন্টিন পোগবা এবং পল পোগবা

এই মুহূর্তে বিশ্বের অন্যতম চর্চিত খেলোয়াড় পল পোগবা। রেকর্ড অর্থে তাঁকে দলে নেয় ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড। ফ্রান্সের জাতীয় দলের অন্যতম সদস্য তিনি। আসন্ন বিশ্বকাপে তাঁর ওপর নির্ভর করছে ফ্রান্সের মাঝমাঠের আক্রমণ। তবে তাঁর দুই ভাই ফ্লোরেন্টিন এই মুহূর্তে ফরাসি লিগে খেললেও, ছোটোবেলা থেকেই স্বপ্ন দেখতেন গিনির হয়ে হয়ে প্রতিনিধিত্ব করতে। এক সাক্ষাৎকারে এমনটাই জানান তিনি। অন্য দিকে আর এক ভাই মাথিয়াস বর্তমানে নেদারল্যান্ডসে ক্লাব ফুটবলে খেললেও, গিনি দলের সদস্য।

pogbas-brothers

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here