ইস্টবেঙ্গল সাসপেন্ড হোক, চাইছেন লালহলুদ কর্তারাই!

তাঁরা চাইছেন ফেডারেশন যাতে শুধু জরিমানা করে না ছেড়ে দেয়। যেন তারা সাসপেন্ড করে ক্লাবকে। সেক্ষেত্রে তারা সদস্য-সমর্থকদের বোঝাতে পারবেন কোয়েসের জন্যই এই সমস্যার মধ্যে পড়তে হল তাদের।

0

ওয়েবডেস্ক: সুপার কাপে না খেলার জবাবদিহি করতে ২৮ তারিখ সাত ক্লাবকে ডেকে পাঠিয়েছে এআইএফএফ। সেদিন ক্লাবগুলি হাজির থাকবে তবে লালহলুদের প্রতিনিধিত্ব করবেন বিনিয়োগকারী সংস্থা কোয়েসের কর্তারা। লালহলুদের কর্তারা অবশ্য আলাদা করে সময় নিয়েছেন ফেডারেশনের কাছে। ২৭ এপ্রিল।

আরও পড়ুন:বার্সেলোনা নয়, রেয়ালই সেরা, দাবি জিদানের

সেদিন তাঁরা ফেডারেশনকে জানাবেন, সুপার কাপে না খেলার সিদ্ধান্ত বিনিয়োগকারী সংস্থার, এই সিদ্ধান্তে তাঁদের সায় ছিল না। তাঁরা মুখে বলছেন, ক্লাবকে যাতে শাস্তির কবলে না পড়তে হয়, সে জন্যই আলাদা সময় নিয়ে ব্যাখ্যা দেবেন তাঁরা। কিন্তু ভেতরে ভেতরে তাঁরা চাইছেন ফেডারেশন যাতে শুধু জরিমানা করে না ছেড়ে দেয়। যেন তারা সাসপেন্ড করে ক্লাবকে। সেক্ষেত্রে তারা সদস্য-সমর্থকদের বোঝাতে পারবেন কোয়েসের জন্যই এই সমস্যার মধ্যে পড়তে হল তাদের।

বস্তুত বোর্ড থাকলেও, লালগলুদ কর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করে কোনো সিদ্ধান্ত নিচ্ছে না কোয়েস। খেলোয়াড় বাছাই নিয়ে তাদের মতামত নেওয়া হচ্ছে না। ভিন রাজ্যে ক্লাব খেলতে গেলে দলের ম্যানেজারও কোয়েস নিজে পাঠাচ্ছে, লালহলুদের এতদিনকার ম্যানেজারদের কোনো গুরুত্ব দিচ্ছে না। এ সব নিয়ে লালহলুদ কর্তারা প্রচণ্ড ক্ষুব্ধ। তারা কোয়েসের সঙ্গে বিচ্ছেদ চাইছেন, কিন্তু বিষয়টি সহজ নয়। তাই এই পথে হাঁটার পরিকল্পনা তাঁদের।

অন্যদিকে ২৮ তারিখের বৈঠকে ফেডারেশন আরও একবার মোহন-ইস্টকে আইএসএল খেলার জন্য চাপ দেবে। আইএসএল খেললে কড়া শাস্তির মুখে পড়তে হবে না বলে ব্ল্যাকমেল করারও সম্ভাবনা। কিন্তু সমস্যা একটাই, ভারতীয় ফুটবলে নানা ঘটনা-গ্ল্যামার যুক্ত হলেও দুই প্রধান ছাড়া কোনো ক্লাবেরই বিশাল ফ্যান বেস নেই। টিভি বিজ্ঞাপনের দর মোহনবাগান বা ইস্টবেঙ্গলের ম্যাচ ছাড়া থাকে অত্যন্ত কম। সেই পুঁজি নিয়েই এখনও ফেডারেশনের বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে কলকাতার দুই ক্লাব। ফ্র্যাঞ্চাইজি ফি দিয়ে আইএসএল খেলতে চাইছে না। সমর্থক-নির্ভর ক্লাবরে যে ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগ খেলার কোনো যুক্তিসঙ্গত কারণ নেই, লালহলুদ কর্তারা সেটা বুঝলেও তাদের সমস্যাটা অভ্যন্তরীণ।

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.