কলকাতা: শতাব্দীপ্রাচীন ক্লাবে একের পর এক বড়ো ঘটনা ঘটেই চলেছে। অর্থসচিব দেবাশিস দত্তর পদত্যাগপত্র আগেই গ্রহণ করেছিল বাগানের বর্তমান কর্মসমিতি, এবার গ্রহণ করা হল সহ সচিব সৃঞ্জয় বসুর পদত্যাগপত্র। ফলে মোহনবাগানে ডিডি-টুম্পাই জুটির যুগের আপাতত অবসান হল। পাশাপাশি ক্লাবের শাসক ও বিরোধী গোষ্ঠীর বোঝাপড়ার সম্ভাবনাও(টুটু বসু ও অঞ্জন মিত্রর) প্রায় তলানিতে চলে গেল। বস্তুত, বোঝাপড়ার চেষ্টা ফলপ্রসূ না হওয়াতেই শাসক শিবির এই পদক্ষেপ করল বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল। অঞ্জন মিত্রর ক্লাব পরিচালনায় ক্ষুব্ধ হয়ে গত মরশুম শেষ হতেই পদত্যাগ করেছিলেন সৃঞ্জয়, দেবাশিস সহ কর্মসমিতির বেশ কয়েকজন সদস্য।

এদিন বাইপাসের ধারে মোহনবাগানের এক কর্মসমিতির সদস্যের হোটেলে কর্মসমিতির বৈঠক ও নৈশভোজের আয়োজন করা হয়েছিল। সেখানেই সৃঞ্জয় বসুর পদত্যাগপত্র গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তাঁর জায়গায় ক্লাবের নতুন সহ সচিব হলেন কর্মসমিতির প্রবীণ সদস্য স্বাধীন মল্লিক। যিনি দীর্ঘদিন ধরেই অঞ্জন মিত্রর অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত।

বস্তুত দেবাশিস দত্তর পদত্যাগ গ্রহণ করলেও সৃঞ্জয় বসুর পদত্যাগপত্র গ্রহণের ব্যাপারে দ্বিধাগ্রস্ত ছিল শাসক শিবির। প্রকাশ্যে বলাও হয়েছিল, টুটু-সৃঞ্জয়ের সংস্থা রিপ্লে ক্লাবের অন্যতম স্পনসর। আর স্পনসররা মোহনবাগানের ‘ভগবান’। তাই তাঁর ব্যাপারে তাড়াহুড়ো করে সিদ্ধান্ত নিতে চায় না ক্লাব। কিন্তু ক্লাবের বার্ষিক সাধারণ সভায় সৃঞ্জয় বসু প্রকাশ্যে মারামারি করায় পরিস্থিতি খারাপ হয়। এমনকি সৃঞ্জয়ের বাবা তথা ক্লাবের সভাপতি টুটু বসু পদত্যাগপত্র ফিরিয়ে নিতে চাইলেও তাঁকে সেই সুযোগ দিতে চাইছে না শাসক শিবির। টুটুকে ‘প্রাক্তন সভাপতি’ সম্বোধন করে চিঠি লেখায় ক্ষোভ প্রকাশ করে রবিবারই অঞ্জন মিত্রকে পালটা চিঠি দিয়েছেন তিনি।

এই মুহূর্তে শাসক শিবিরের বিরুদ্ধে মামলা চলছে হাইকোর্টে। ফলে কিছুটা ধীরে খেলতে চাইছেন অঞ্জন মিত্ররা। নইলে সোমবারই ক্লাবের দুই স্পনসরের নাম ঘোষণা হয়ে যেত। তবে সৃঞ্জয়ের মতো জনপ্রিয় ও গুরুত্বপূর্ণ পদাধিকারীকে ছাঁটাই করায় পরিষ্কার, নির্বাচনের জন্য যথেষ্টই প্রস্তুত শাসক শিবির।

এদিন ক্লাবের নতুন সহ সভাপতি হলেন প্রাক্তন বিচারপতি উমাশঙ্কর রায়। তিনি এই মরশুমে দল গড়ার জন্য তিন কোটি টাকা অনুদান দেবেন বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

এদিনের সভায় ঠিক হয়েছে আগামী মোহনবাগান দিবসে ‘মোহনবাগান রত্ন’ দেওয়া হবে প্রদীপ চৌধুরীকে। জীবনকৃতি সম্মান পাবেন গুরুবক্স সিং ও অরুণ লাল। গত মরশুমের বর্ষসেরা ফুটবলার হচ্ছেন শিলটন পাল, বর্ষসেরা ক্রিকেটার হচ্ছেন সুদীপ চ্যাটার্জি।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন