Shiva N'Zigou

ওয়েবডেস্ক: নিজের পারফরমেন্স দিয়ে ক্রীড়াবিদরা যে কোনো বয়সের মানুষের মন জয় করে নিতে পারেন। যত সময় যায় সমাজের কাছে তাঁরা রোল মডেল হয়ে ওঠেন। কিন্তু পরবর্তীকালে যদি জানা যায়, সেই ক্রীড়াবিদের প্রকাশ্য চেহারার আড়ালে লুকিয়ে রয়েছে কোনো মিথ্যার মুখোশ, নোংরা চেহারা? এমন শুনে সবাই চমকে যাবেন, সেটাই স্বাভাবিক। ঠিক এমনটাই কিন্তু ঘটেছে। যা রীতিমতো তোলপাড় ফেলে দিয়েছে ক্রীড়া মহলে।

আরও পড়ুন: ৮৬ গজ দূর থেকে স্ট্রাইকারকে অ্যাসিস্ট করলেন গোলকিপার, ভাইরাল ভিডিও

গাবনের প্রাক্তন ফুটবলার শিবা এন জিগু। ২০০১ থেকে ২০১০ ফরাসি লিগে নান্তেস এবং রেইমসের হয়ে খেলেছেন তিনি। ২০০০ সালে আফ্রিকান কাপে তরুণ খেলোয়াড় হিসাবে গোল করার রেকর্ড করেন। মাত্র ১৬ বছর ৯৩ দিনে। কিন্তু এখন জানা যাচ্ছে সেটা সম্পূর্ণই ছিল মিথ্যে।

Shiva-NZigoufinal

নিজের স্বীকারোক্তিতে তিনি জানিয়েছেন, তাঁর বয়স পাঁচ বছর বেশি ছিল। অর্থাৎ সেই সময় তাঁর বয়স ছিল ২১। জন্মের পর তাঁর অভিভাবকরা কিছু কারচুপি করেন।

 

শুধু তাই নয়, তাঁকে পেশাদার ফুটবলার করার জন্য তার বাবা ধর্মীয় রীতির সাহায্যে তাঁর মাকে নাকি খুনও করেন। সবাইকে চমকে দিয়ে তাঁর আরও স্বীকারোক্তি , “নিজের আন্টির সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক ছিল। শুধু তাই নয়, নিজের বোনের সঙ্গেও। আমরা একসঙ্গে শুয়েছি। পুরুষের সঙ্গেও শুয়েছি। একজনের সঙ্গে অনেক বছরের সম্পর্কও ছিল”।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন