কলকাতা: তিনি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর ভাই। টুটুবিরোধী লড়াইয়ে অঞ্জন মিত্রর সেনাপতি তিনি। এতদিন মাঠ সচিব ছিলেন। সৃঞ্জয়-দেবাশিস গোষ্ঠীর লোকজন পদত্যাগ করার পর হয়ে গেছেন মোহনবাগানের ফুটবল সচিব। কিন্তু পুরনো মাঠ সচিবের পদ থেকে ইস্টফা দেননি। তাই নিয়ে ক্ষোভ রয়েছে অঞ্জন গোষ্ঠীর মধ্যেই। কিন্তু তাঁর ভরসাতেই যেহেতু অঞ্জন ভোটের বৈতরণী পার হতে চাইছেন, তাই তাঁকে সরাসরি কিছু বলতেও পারছেন না। আর বাবুনও পদ ছাড়ছেন না।

এই অবস্থায় সিদ্ধান্ত হয়েছে আগামী কর্মসমিতির সভায় বাবুনকে বুঝিয়ে মাঠ সচিবের পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ানো হবে। তাঁর জায়গায় দায়িত্ব নেবেন মনোজ শর্মা। যদি বকলমে কাজটা করবেন স্বাধীন মল্লিক। কিন্তু অঞ্জনঘনিষ্ঠ এবং রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের ভাই স্বাধীন এখন পদ নিতে চান না। ভোট হলে ভোটে জিতেই মাঠ সচিব হতে চান তিনি।

এদিকে শুক্রবার অবিনাশ রুইদাস ও অরিজিত বাগুইকে ডেকে টাকা কমানোর অনুরোধ করেন ফুটবল সচিব। কারণ অঞ্জন শিবিরের বক্তব্য, অঞ্জন মিত্রদের চাপে ফেলতেই অবিনাশ-অরিজিতদের মতো পাঁচ ফুটবলারকে অযৌক্তিক ভাবে অনেক বেশি টাকায় চুক্তিবদ্ধ করেছে দেবাশিস-সৃঞ্জয়রা। যদিও ফুটবল সচিবের কথা মানতে রাজি হননি দুজনের কেউই। উলটে অরিজিতের দাবি গত বছর তিনি ২ লক্ষ নন, ২০ লক্ষ টাকা পেয়েছিলেন। এবার সেটা বেড়ে ২৩ লক্ষ হয়েছে। সেটা এমন কিছু বৃদ্ধি নয়। ২০-র জায়গায় ২ লেখাটা আসলে ছাপার ভুল। ফুটবলারদের কথা মেনে নিয়ে বাবুন বলেছেন, তাঁরা যেন ১১ জুন থেকে অনুশীলন করেন। যদিও তাঁদের সঙ্গে জুলাই থেকে চুক্তি। তাঁর কথা মেনে নিয়েছেন দুই ফুটবলারই।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here