logo

ওয়েবডেস্ক: রেয়াল মাদ্রিদ এবং বার্সেলোনার পারস্পরিক সম্পর্ক নিয়ে নতুন কিছু বলার নেই। মাঠের মধ্যে তাদের যেমন প্রতিযোগিতা, মাঠের বাইরেও তা কোনো অংশে কম নয়, অর্থাৎ দলে খেলোয়াড় নেওয়ার ব্যাপারে। চলতি মরশুমে রেয়ালের কিছু পাওয়ার নেই। কোচ হিসাবে জিদান দলে যোগ দিয়েই দলগঠনের লড়াইয়ে নেমে পড়েছেন।

অন্য দিকে চলতি মরশুমে লা লিগার শীর্ষে রয়েছে বার্সেলোনা। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমিতেও পৌঁছেছেন মেসিরা। কোপা ডেলরে-র ফাইনালেও রয়েছে তারা। কিন্তু কাতালান জায়েন্টরাও দলকে এখন থেকে আরও তরুণ এবং মজবুত করতে উঠে পড়ে লেগেছে। ফলে নতুন মরশুমে দু’ দলই যে বেশ কয়েক জন ফুটবলারের জন্য ঝাঁপাবে তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

আরও পড়ুন: ম্যানইউ-র বিরুদ্ধে গোলের পর ‘ইঙ্গিতপূর্ণ’ সেলিব্রেশন কুতিনহোর

দেখে নিন তেমনই তিন তরুণ প্রতিভাবান ফুটবলারের ব্যাপারে যাঁদের দলে নিতে ইচ্ছুক রেয়াল মাদ্রিদ এবং বার্সেলোনা–

১। জোয়াও ফেলিক্স

১৯ বছর বয়সি এই তরুণ পর্তুগিজকে আগামী দিনের ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো বলা হচ্ছে। চলতি মরশুমে সব টুর্নামেন্ট মিলিয়ে ১৬ গোল এবং ৯টি ‘অ্যাসিস্ট’ রয়েছে তাঁর। ইউরোপা লিগের শেষ ম্যাচে হ্যাটট্রিক করেছিলেন। তাঁর বর্তমান দল বেনফিকা তাঁর দর রেখেছে ১২ কোটি পাউন্ড। তাঁকে অনেক দিন ধরেই রেডারে রেখেছে বার্সেলোনা এবং রেয়ালের স্কাউটরা। নতুন মরশুমে তাঁকে নিয়ে টানাটানি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

felix600
ফেলিক্স

২। লুকা জোভিচ

এই মুহূর্তে ইউরোপের অন্যতম তরুণ স্ট্রাইকার। আইনট্রাখ্ট‌ ফ্রাঙ্কফুর্টের হয়ে বেশ নজর কাড়ছেন। সব টুর্নামেন্ট মিলিয়ে ২৫ গোল এবং ৭টি ‘অ্যাসিস্ট’ রয়েছে তাঁর। বেনফিকা থেকে লোনে জার্মানির ফ্রাঙ্কফুর্টে খেলছেন ২১ বছর বয়সি এই সারবিয়ান। চুক্তি অনুযায়ী মরশুমের শেষে তাঁকে স্থায়ী ফুটবলার হিসাবে দলে নিতে পারে ফ্রাঙ্কফুর্ট। রেয়াল বা বার্সার যদি তাঁকে দলে নিতে হয় তা হলে ৭ কোটি পাউন্ড খরচা করতে হবে। কারণ দুই স্প্যানিশ দলের আপফ্রন্টে থাকা স্ট্রাইকাররা এখন কেরিয়ারের গোধূলি লগ্নে। তাঁরা হলেন বার্সার সুয়ারেজ এবং রেয়ালের বেঞ্জেমা।

jovic600
জোভিচ

৩। টাকেফুসা কুবো

তালিকায় সব চেয়ে তরুণ ১৭ বছর বয়সি জাপানি ফুটবলার টাকেফুসা কুবো। রিপোর্ট অনুযায়ী তাঁকে দলে নেওয়ার ক্ষেত্রে লড়াইয়ে আছে রেয়াল এবং বার্সা। ২০১১ সালে তাঁকে দলে নিয়েছিল বার্সা, কমবয়সিদের দলে খেলানোর জন্য। তবে ২০১৫ সালে ফিফা কমবয়সি খেলোয়াড় নেওয়ার ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা জারি করে। এই মুহূর্তে জাপানের এফসি টোকিওতে খেলছেন তিনি। চুক্তি অনুযায়ী ইউরোপে খেললে বার্সাতেই খেলতে হবে তাঁকে। কিন্তু তা সত্ত্বেও রেয়াল তাঁকে ইচ্ছুক দলে নেওয়ার জন্য।

kubo600
কুবো

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here