কলকাতা: শতাব্দীপ্রাচীন ক্লাবকে দখল করার লড়াইয়ে তুচ্ছ হয়ে গেল ৬০ বছরের বন্ধুত্ব। শোনা যাচ্ছিল দেবাশিস দত্তকে বলি দিয়ে বসু-মিত্র পরিবারের মিলমিশের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। কিন্তু তা যা এখনই সম্ভব নয়, তা প্রমাণ হয়ে গেল। বুধবারই মোহনবাগানের কর্মসমিতির সভায় অর্থ সচিব দেবাশিস দত্তর পদত্যাগ গৃহীত হয়েছে। কারণ হিসেবে বলা হয়েছে পরপর চারটি বৈঠকে চিঠি দিয়ে জানালেও আসেননি তিনি। শেষে নোটিশ পাঠালেও কোনো উত্তর দেননি। তাই তাঁর পদত্যাগপত্র গ্রহণ করা হয়েছে। তবে দেবাশিসের পদত্যাগ গ্রহণ করা হলেও সহ সচিব সৃঞ্জয় বসুর পদত্যাগপত্র গ্রহণ করা হয়নি। কারণ তিনি ক্লাবের অন্যতম স্পনসর। কিন্তু দেখা গেল সৃঞ্জয়-দেবাশিস জোট ভাঙা এতটা সহজ নয়। দেবাশিসের হয়ে এবার সরাসরি ময়দানে নামলেন পদত্যাগী সভাপতি টুটু বসু।

এতদিন নানা দ্বন্দ্বেও বাল্যবন্ধু অঞ্জন মিত্রর বিরুদ্ধে মুখ খোলেননি টুটু। এবার তাই করলেন। সরাসরি ‘তীব্র নিন্দা’ করলেন দেবাশিসকে সরানোর সিদ্ধান্তের। বললেন, ‘দেবাশিস যোগ্য’, তিনি ক্লাবে ‘আর্থিক সচ্ছতা’ এনেছেন। টুটুর দাবি ‘ব্যক্তিগত আক্রোশ’ মেটাতেই দেবাশিসকে ছেঁটে ফেলেছেন অঞ্জন মিত্র। তিনি এই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারেরও দাবি জানিয়েছেন।

টুটু বসুর প্রেস বিজ্ঞপ্তি

তবে টুটুর এই প্রেস বিজ্ঞপ্তি যথার্থই তাঁর মনের কথা কিনা, তা এখনই বলা যাবে না। নাকি স্রেফ সম্পর্কের খাতিরেই এই বিবৃতি দিতে বাধ্য হয়েছেন তিনি, তাও সময়ই বলবে। হতেই পারে, দেবাশিসকে বাদ দিয়ে দুই পরিবারের মধ্যে ক্লাব বণ্টনের বৃহত্তর গেমপ্ল্যান তলায় তলায় তৈরি হচ্ছে। মোহনবাগানে সবই সম্ভব।

তবে এসবই জল্পনা। আসল চিত্র বোঝা যাবে ২৩ জুন বার্ষিক সাধারণ সভায়।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here