খবর অনলাইন: তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ তিনি তাঁর ক্লাবের হয়ে নিজেকে যতটা উজাড় করে দেন তার সিকিভাগও নিজের দেশের জন্য করেন না। আজ সেই সব অভিযোগ উড়িয়ে অবিস্মরণীয় প্রত্যাবর্তন ঘটালেন ফুটবলের যুবরাজ লেওনেল মেসি।

শিকাগোতে, গ্রুপ ‘ডি’র আর্জেন্তিনা বনাম পানামা ম্যাচে অবশ্য শুরুর একাদশে মেসিকে রাখেননি আর্জেন্তিনা কোচ খেরার্দো মার্তিনো। তবে তাতে বিশেষ অসুবিধায় পড়তে হয়েনি তাঁর দলকে। ম্যাচের ৭ মিনিটের মাথায় ফ্রি-কিক থেকে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন নিকোলাস ওতামেন্দি। ৩২ মিনিটে লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন পানামার গোদোয়। দশ জনে খেলা পানামা তবুও আর্জেন্তিনা আক্রমণকে সামলে মাঝেমধ্যেই চোরাগোপ্তা হানা চালাচ্ছিল আর্জেন্তিনার হাফে। বিরতিতেও স্কোরলাইন ছিল ১-০। ম্যাচের যখন আধঘণ্টা বাকি, আগুস্তো ফের্নান্দেজকে তুলে মেসিকে নামান মার্তিনো। মাঠে উপস্থিত প্রায় ৫৪০০০ দর্শক দাঁড়িয়ে হাততালি দিয়ে মেসিকে অভ্যর্থনা জানান। এর পরই আরও আক্রমণাত্মক হয়ে ওঠে আর্জেন্তিনা। মাঠে নামার আট মিনিটের মধ্যেই নিজের উপস্থিতি জানান দেন মেসি। ১৫ গজ দূর থেকে দুর্দান্ত গোল করেন যুবরাজ। ৭৮ মিনিটে ফ্রি-কিক থেকে আরেকটি অসাধারণ গোল বেরোয় মেসির পা থেকে। পানামার তৈরি ওয়াল টপকে গোলে ঢুকে যায় বল। পানামার গোলকিপার পেনেদো পুরো শরীর উজাড় করে গোল বাঁচানোর চেষ্টা করলেও তাতে লাভ কিছু হয়নি। ৮৭ মিনিটে পানামা ডিফেন্স ভেদ করে ফের ১৫ গজ দূর থেকে অসাধারণ গোল করেন মেসি। এই গোলের সুবাদে হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন মেসি। মেসির প্রত্যাবর্তনে উজ্জীবিত হয়ে ম্যাচের প্রায় অন্তিম লগ্নে পাঁচ নম্বর গোলটি করেন সের্খিও আগেরো। এই জয়ের সুবাদে খুব সহজেই কোয়ার্টার ফাইনালে উঠল আর্জেন্তিনা।

গ্রুপ ‘ডি’র অপর ম্যাচে বোলিভিয়াকে ২-১ গোলে হারাল চিলে। ৪৬ মিনিটে প্রথম গোলটি করেন চিলের আর্তুরো বিদাল। ৬০ মিনিটে ফ্রি-কিক থেকে অসাধারণ গোল করে ম্যাচে সমতা ফেরান বোলিভিয়ার খাসমানি কাম্পোস। ম্যাচের শেষ মুহূর্তে স্টপেজ টাইমে বিতর্কিত পেনাল্টি থেকে চিলের হয়ে জয়সূচক গোলটি করে বিদাল।

অন্য দিকে গতকাল রাতে শুরু হল এ বছরের ইউরো কাপ। প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হল আয়োজক দেশ ফ্রান্স আর রোমানিয়া। ম্যাচ শুরুর প্রথম পাঁচ মিনিটে ফ্রান্সকে বেশ চাপে ফেলে দিয়েছিল রোমানিয়া আক্রমণ। ফ্রান্সের গোলকিপার দুর্দান্ত ভাবে না বাঁচালে পঞ্চম মিনিটেই গোল হজম করতে হত ফ্রান্সকে। এর পর বেশ কিছু সহজ সুযোগ হাতছাড়া করে ফ্রান্স। বিরতির পর ৫৮ মিনিটে প্রথম গোলের মুখ দেখে ফ্রান্স। পায়েটের বাড়ানো পাসে হেড করেন অলিভার জিরু। ৬৫ মিনিটে পেনাল্টি থেকে গোল করে রোমানিয়াকে ম্যাচে ফেরান স্টান্সু। খেলার অন্তিম লগ্নে যখন ড্র-ই অবশ্যাম্ভাবী দেখাচ্ছিল, ঠিক তখনই অসাধারণ গোল করেন দিমিত্রি পায়েট। এই জয়ের ফলে গ্রুপ ‘এ’তে কিছুটা সুবিধাজনক জায়গায় থাকল ফ্রান্স ।

আজ ইউরোতে মুখোমুখি আলবানিয়া-সুইৎজারল্যান্ড (সন্ধ্যে সাড়ে ৬টা); ওয়েলস-স্লোভাকিয়া (রাত সাড়ে ৯টা) আর ইংল্যান্ড-রাশিয়া (রাত সাড়ে ১২টা)।

ছবি: টেলেগ্রাফ

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here