কনফেডারেশন কাপ: লড়ে জিতল তরুণ জার্মান দল

0
820

জার্মানি -৩ (স্টিন্ডল, ড্র্যাক্সলার, গোরেত্গজা)  অস্ট্রেলিয়া – ২ (রজিক, জুরিক)

সানি চক্রবর্তী: তরুণ ব্রিগেড যে সিনিয়রদের সাহায্য করতে প্রস্তুত, কনফেডারেশনস কাপে সেটার প্রমাণ দিতে শুরু করল জার্মান শিবির। লড়াই করে অস্ট্রেলিয়াকে তারা হারাল ৩-২ ব্যবধানে। ম্যাচশেষে জার্মান কোচ জোয়াকিম লো বলছিলেন, ‘প্রথমার্ধে ছেলেরা দারুণ খেলেছে। তবে ৬০ মিনিটের পরে তারা যেন কেমন খেই হারিয়ে ফেলে। তাও তরুণ দলের ইচ্ছাটা চোখে পড়েছে। সবাই দেখেছে আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলে জেতার জন্য মরিয়া চেষ্টা চালিয়ে গেছে ওরা।’

জার্মান কোচ এমনিতেই বিশ্বকাপের বছরখানেক আগে হওয়া কনফেডারেশনস কাপের বিরোধী। ২০০৬ থেকে দীর্ঘদিন দায়িত্বে থাকার পরে এখন তিনি মহাদেশীয় চ্যাম্পিয়নদের এই প্রতিযোগিতাকে দেখেন তরুণ প্রতিভাদের উত্থানমঞ্চ হিসেবে। ম্যানুয়েল ন্যয়ার, জেরম বোয়াতেং, ম্যাট হামেলস, টনি ক্রুস, মেসুত ওজিল, টমাস মুলার সহ সব তারকা ফুটবলারকেই আপাতত ছুটি কাটানোর ছাড়পত্র দিয়েছেন জার্মান কোচ। বরং পরের বছর বিশ্বকাপে তাদের সঙ্গী বাছছেন লো। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে নামার আগে জার্মান প্রাক্তনী অলিভার বিয়েরহফ তো বলেই রেখেছিলেন, ‘প্রথম লক্ষ্য হোক সিনিয়র দলের সাপ্লাই লাইন তৈরি করা। দ্বিতীয়টা ম্যাচ জেতা।’

২০১৪ সালের বিশ্বকাপজয়ী স্কোয়াডে যারা ছিলেন, তাদের মাত্র দুজনকে নিয়ে রাশিয়ায় খেলতে গেছেন লো। তাও মুস্তাফি, ড্র্যাক্সলাররা তখন দলের নিয়মিত সদস্য ছিলেন না। প্রত্যাশামতোই অস্ট্রেলিয়া সর্বশক্তি নিয়ে ঝাঁপিয়ে যথেষ্ট চাপে ফেলেছিল তরুণ জার্মান দলকে। তাও লড়াকু মানসিকতার পরিচয় দিয়ে জয় দিয়েই অভিযান শুরু করল জার্মানরা। তুলনামূলক সিনিয়র ড্র্যাক্সলার ম্যাচের পরে বলেন, ‘নিশ্চয়ই উন্নতির দরকার এবং আমরা সেটা করবও।’ খেলা শুরুর ৫ মিনিটের মধ্যে জুলিয়ান ব্র্যান্ডটের পাস ধরে লার্স স্টিন্ডলের গোলে লিড নেয় জার্মানি। গোল খেয়ে দারুণ ভাবে উঠেপড়ে লাগে অস্ট্রেলিয়া। একটি দুটো ক্ষেত্রে সুযোগ নষ্ট না করলে অনেক আগেই সমতা ফেরাত তারা। শেষমেশ ৪১ মিনিটের মাথায় টম রজিকের গোলে সমতা ফেরায় এশিয়ান কাপ চ্যাম্পিয়নরা। প্রথমার্ধ শেষ হওয়ার মিনিট খানেক আগেই যদিও পেনাল্টি থেকে গোল করে বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের ফের লিড এনে দেন জুলিয়ান ড্র্যাক্সলার। দ্বিতীয়ার্ধের খেলা শুরুর ৩ মিনিটের মধ্যে ৩-১ করেন লিওন গোরেত্গজা। ভিডিয়ো অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারি সাহায্যে ৫৬ মিনিটে যদিও ব্যবধান কমান টমি জুরিক। দুটি গোলের ক্ষেত্রেই কিছুটা হলেও ভুল করেন গোলরক্ষক বার্নাড লিনো। ১৮ জনের দলে থাকলেও বার্সেলোনার গোলরক্ষক মার্ক আন্দ্রে টের স্টেগেনকে এদিন খেলায়নি জার্মানি। বাকি সময় টানটান ম্যাচ হলেও গোলের খাতা আর খুলতে পারেনি কোনো দলই। বুন্দেশলিগায় সাড়া ফেলে দেওয়া আরবি লেইপজিগের ২১ বছরের স্ট্রাইকার টিমো ওয়ের্নারকে নামিয়েও লিড বাড়াতে পারেনি জার্মানিও।

বৃহস্পতিবার চিলির মুখোমুখি হবে জার্মানি। যারা ক্যামেরুনকে ২-০ ব্যবধানে হারিয়ে অভিযান শুরু করেছে।

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here