খবর অনলাইন: স্বপ্নভঙ্গ আলবানিয়ার। ফুটবলের বড়ো মঞ্চে কোনও বড়ো দলকে আটকে দেওয়া সব সময়েই ছোট দলগুলির কাছে খুব গৌরবময় ব্যাপার। মঙ্গলবারই এমনই কাণ্ড ঘটিয়ে পর্তুগালকে রুখে দিয়েছিল আইসল্যান্ড। বুধবার সন্ধ্যায় এমন কিছু ঘটানোর আশায় বুক বেঁধেছিলেন আলবানিয়ার সমর্থককুল। কিন্তু ম্যাচের শেষ লগ্নের দু’টি গোল তাঁদের সব আশায় জল ঢেলে দিল।

ম্যাচের শুরু থেকেই ফ্রান্সের টুঁটি চেপে ধরেছিল আলবানিয়া ডিফেন্স। ফ্রান্সের পক্ষে বিপক্ষের ডিফেন্স ভেদ করা সম্ভব হচ্ছিল না বলে প্রথমার্ধে আলবানিয়া গোলকিপারকেও সে ভাবে দুর্দান্ত কোনও সেভ করতে হয়নি। আগের ম্যাচে বিশ্বমানের গোল করা পায়েতকে দেখেও এ দিন যথেষ্ট আত্মতুষ্ট মনে হয়েছিল।

ম্যাচের ৯০ মিনিটে প্রথম গোলের মুখ দেখে ফ্রান্স। ছয় গজ দূর থেকে হেড করে আলবানিয়ার জালে বল জড়ান আন্টনি গ্রিজম্যান। স্টপেজ টাইমের ষষ্ঠ মিনিটে পল পোগবার দুর্দান্ত প্যাস থেকে ফ্রান্সের হয়ে জয়সূচক গোলটি করেন পায়েত। এই জয়ের ফলে দুই ম্যাচে ছয় পয়েন্ট নিয়ে কোয়ার্টারে ফ্রান্স উঠলেও, দলের পারফরম্যান্সে যথেষ্ট হতাশ দেখিয়েছে ফ্রান্সের কোচ দিদিয়ের দেশঁকে।

এ দিকে মাঠের বাইরের চাপের প্রভাব মাঠের ভেতরেও পড়ল রাশিয়ার। উয়েফার শাস্তির খাঁড়া এখন রাশিয়ার মাথায় ঝুলছে, এরই মধ্যে স্লোভাকিয়ার কাছে হেরে ইউরো থেকে ছিটকে যাওয়ার পথে তারা। বুধবার প্রথমার্ধেই দু’গোলে পিছিয়ে পড়ে তারা। স্লোভাকিয়ার হয়ে দু’টো গোল হামসিক ও ওয়েইসের। ম্যাচ শেষের দশ মিনিট আগে গ্লুশাকোভের গোলে ব্যবধান কমালেও এতে কাজের কাজ কিছু হয়নি। কোয়ার্টারে উঠতে গেলে পরের ম্যাচে ওয়েলসকে হারাতেই হবে রাশিয়াকে।

আইসল্যান্ডের অহেতুক সমালোচনা, ভর্ৎসিত রোনাল্ডো

অন্য দিকে, আগের ম্যাচে ছোট দলের কাছে আটকে যাওয়া খেলোয়াড়চিত মনোভাব নিয়ে গ্রহণ করতে পারলেন না পর্তুগালের তারকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। সরাসরি আক্রমণ করে বসলেন আইসল্যান্ডের সমর্থকদের। নিজের গোল না পেলেও আইসল্যান্ডের গোলের পর তাদের উৎসব মন থেকে মেনে নিতে পারেননি তিনি। তাই প্রথম বার তাদের মুখোমুখি হওয়া নবাগত এই ছোট্ট দেশের সমর্থকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, “ওদের উৎসব দেখে মনে হচ্ছিল চ্যাম্পিয়নই হয়ে গিয়েছে। এই জন্যই এদের কিছু হয় না”। তবে এর জবাবও সঙ্গে সঙ্গেই পেয়ে যান তিনি, আইসল্যান্ডের ডিফেন্ডার কারি আর্নাসন বলেন “এই কারণেই রোনাল্ডো কোনও দিন মেসির মতো হতে পারবে না। মেসি সব সময় ওর থেকে এক ধাপ এগিয়ে থাকবে। রোনাল্ডো দুর্দান্ত ফুটবলার হতে পারে, কিন্তু সেই মাপের মানুষ নয়”। ফুটবল মহলের মতে, রোনাল্ডোর এ রকম ভাবে অহেতুক মেজাজ হারানো নতুন কিছু নয়। ২০১০ বিশ্বকাপে স্পেনের কাছে শেষ ষোলোয় হেরে ছিটকে গিয়েছিল পর্তুগাল। সেই ম্যাচেও গোল না পেয়ে রোনাল্ডো  ক্যামেরার দিকে থুতু ছিটিয়ে প্রবল সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here