ডোপ টেস্টের দ্বিতীয় দফায়ও আটকে গেলেন শট পাটার ইন্দরজিৎ সিং। এ বারেও তাঁর রক্তের নমুনায় নিষিদ্ধ মাদক দ্রব্যের হদিস মিলল। কাজেই অলিম্পিকে যাওয়ার স্বপ্ন সম্ভবত অধরাই থেকে গেল ইন্দরজিতের।

প্রথম নমুনার মতো ২৮ বছর বয়সি এই শট পাটারের দ্বিতীয় নমুনাতেও অ্যাড্রোস্টেরন পাওয়া গিয়েছে। প্রথম নমুনার ফলের ওপর ভিত্তি করে জাতীয় ডোপ-বিরোধী সংস্থা (নাডা) তাঁকে সাময়িক ভাবে খেলা থেকে নির্বাসিত করে। নাডার শৃঙ্খলারক্ষা কমিটি তাঁকে শুনানিতে হাজির হওয়ার জন্য নোটিশ পাঠিয়েছে। এই কমিটিতে ইন্দরজিৎ তাঁর বক্তব্য বলার সুযোগ পাবেন। তবে কবে এই শুনানি হবে তা জানা যায়নি। রিও-তে ইন্দরজিতের ইভেন্ট ১২ আগস্ট শুরু হলেও অলিম্পিক ৫ তারিখেই শুরু হয়ে যাচ্ছে। সুতরাং বলাই যায়, অলিম্পিকে ইন্দরজিতের যাওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম।       

বিশ্ব ডোপ-বিরোধী সংস্থার (ওয়াডা) নতুন নিয়ম অনুযায়ী, শুনানিতে নিজের যুক্তি বোঝাতে ব্যর্থ হলে আগামী ৪ বছর ইন্দরজিৎ সিংহ কোনও খেলায় অংশ নিতে পারবেন না।  

নরসিংহ যাদবের মতো প্রথম নমুনা পরীক্ষায় ব্যর্থ হওয়ার পর ২০১৪-এর এশিয়ান গেমসের ব্রোঞ্জ জয়ী ইন্দরজিৎ ষড়যন্ত্রের অভিযোগ করেছিলেন। তিনিই নাডাকে অনুরোধ করেছিলেন দ্বিতীয় নমুনা পরীক্ষা করার জন্য। সেই নমুনার ফল জানা গেল মঙ্গলবার। উল্লেখ্য, ইন্দরজিৎ কোনও জাতীয় শিবিরে প্রশিক্ষণ নেন না। তিনি ব্যাক্তিগত কোচের কাছে প্রশিক্ষণ নেন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here