অস্ট্রেলিয়া-প্রথম ইনিংস: ৩০০, দ্বিতীয় ইনিংস: ১৩৭ (ম্যাক্সওয়েল ৪৫, জাদেজা ৩-২৪)

ভারত-প্রথম ইনিংস: ৩৩২ (জাদেজা ৬৩, লিয়ন ৫-৯২), দ্বিতীয় ইনিংস: ১৯-০ (রাহুল ১৩ নট আউট)

ধর্মশালা: ‘মর্নিং শোজ দ্য ডে’, বিখ্যাত এই ইংরেজি উক্তিটা ভুল প্রমাণ করে দিলেন ভারতীয় ক্রিকেটাররা। তৃতীয় দিন যখন শুরু হয়েছিল অস্ট্রেলিয়া তখন চালকের আসনে, দিনের খেলা যখন শেষ হল, অস্ট্রেলিয়া তখন প্রায় ট্রফি হারানোর মুখে দাঁড়িয়ে। ব্যাট হাতে ৬৩ এবং বল হাতে তিন উইকেট নিয়ে দিনের নায়ক রবীন্দ্র জাদেজা।

দ্বিতীয় দিনের শেষে ভারতের সামনে যে চাপ ছিল, দেড় ঘন্টার ব্যাটিং-এ সেই চাপ বিপক্ষ শিবিরে পাঠিয়ে দেন ঋদ্ধিমান সাহা এবং জাদেজা। এক দিকে ধুমধাড়াক্কা চালিয়ে খেলছিলেন জাদেজা, অন্য দিকে তাঁকে যোগ্য সঙ্গত দিয়ে এগিয়ে যাচ্ছিলেন ঋদ্ধি। দু’জনের জুটি যখন ভেঙেছে তত ক্ষণে অস্ট্রেলিয়ার রান পেরিয়ে গিয়েছে ভারত। প্রথম ইনিংসে পাওয়া ৩২ রানের লিডটাই মূল্যবান হয়ে দাঁড়ায় ভারতের কাছে।

দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিং ভরাডুবির সম্মুখীন হয় স্মিথবাহিনী। উমেশ যাদব এবং ভুবনেশ্বর কুমারের দাপটে দ্রুত তিন উইকেট যায় অস্ট্রেলিয়ার। চতুর্থ উইকেটে একটা পার্টনারশিপ তৈরি করেন ম্যাক্সওয়েল এবং হ্যান্ডসকোম্ব। কিন্তু অশ্বিনের বলে হ্যান্ডসকোম্ব ফিরতেই তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়ে অজিরা। বাকি উইকেটগুলি অশ্বিন, জাদেজা এবং উমেশ নিজেদের মধ্যে ভাগাভাগি করে নেন। বেঙ্গালুরুর দ্বিতীয় ইনিংসের পর ব্যাটিং ভরাডুবির মধ্যে পড়ল অস্ট্রেলিয়া।

১০৬ রানের টার্গেট নিয়ে ব্যাট করতে নেমে দিনের শেষে অপরাজিত রয়েছে ভারতের দুই ব্যাটসম্যান। চতুর্থ দিনের লাঞ্চের আগেই খেলা শেষ হয়ে যাওয়ার কথা। তবে ভারতকে আত্মতুষ্ট হলে চলবে না। গত মাসেই পুনে টেস্টের দু’ইনিংসেই ভেঙে পড়েছিল ভারত, সেটা মনে রেখেই মঙ্গলবার তাদের ব্যাট করতে নামা উচিত।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন