সুনীলের বিশ্বমানের গোলে অব্যাহত ভারতের জয়ধারা

0
396

ভারত -১ (সুনীল)  কিরগিজস্থান – ০

সানি চক্রবর্তী: লাগাতার কিরগিজ আক্রমণ। কখনও ভারতের রক্ষাকর্তা গোলপোস্ট, কখনও গোলরক্ষক গুরপ্রীত। আবার কখনও গোলে বল না ঢুকতে দেওয়ার মরিয়া লড়াইয়ে আনাস-সন্দেশদের শরীর ছুঁড়ে দেওয়া। দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকেই কান্তিরাভায় ব্যতিব্যস্ত ভারতীয় ফুটবল দল। দেয়ালে পিঠ ঠেকে যাওয়ার মতো অবস্থা। আর ঠিক, সেখান থেকেই পালটা আক্রমণে একেবারে কিলার ব্লো। ভারতীয় ফুটবলের পোস্টার বয় সুনীল ছেত্রীর ৬৯ মিনিটের মাথায় দুরন্ত গোল, তার জেরেই কিরগিজস্থানকে ১-০ ব্যবধানে হারাল ভারত।

দলের বিপদে নীচে নেমে কার্যত ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডারের ভূমিকায় নেমে এসে বল কাড়েন সুনীল। সেখান থেকেই শুরু হয় পালটা আক্রমণ। গতি ও শক্তির মিশেলে এক-দুই-তিনজন কিরগিজ ফুটবলারকে টপকে ভারতীয় পেনাল্টি বক্সের সামনে থেকে বিপক্ষ হাফে ঢুকে এসে অপেক্ষারত জেজেকে পাস। খানিকটা এগিয়ে  কিছুক্ষণের জন্য বল হোল্ড করে অধিনায়কের দৌড় বুঝে দর্শনীয় লব জেজের, আর তা থেকেই বল মাটিতে পড়ার আগে নিঁখুত ডান পায়ের প্লেসিংয়ে সুনীলের জাল খুঁজে নেওয়া। সিনেমার চিত্রনাট্যের মতোই যেন মার খেতে খেতে উঠে দাঁড়িয়ে হিরোর এক পালটা আঘাত। কাজ শেষ। এএফসি যোগ্যতাঅর্জন পর্বের দুটি ম্যাচেই সুনীলের একমাত্র গোলে ভর করে বড়ো স্বপ্নের দিকে গুটি গুটি পায়ে এগোনো জারি থাকল ভারতীয় দলের। ২ ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে আপাতত গ্রুপশীর্ষে ভারত। আর সুনীলের এটা দেশের জার্সিতে ৯৪ তম আন্তর্জাতিক ম্যাচে ৫৪ তম গোল। উল্লেখ্য, ৯ বছর আগে সুনীলের করা গোলেই ২০১১ এশিয়ান কাপের রাস্তা খুলেছিল ভারতের সামনে।

ফিফা ক্রমতালিকায় ভারতের থেকে ৩২ ধাপ নীচে থাকলেও কিরগিজস্থান যে শক্ত গাঁট জানা ছিল। বড়ো চেহারার কিরগিজ ফুটবলাররা বেশিরভাগই ইউরোপের বিভিন্ন লিগে খেলেন। অভিজ্ঞতা ও শারীরিক  উপস্থিতিতে তাই ভারতকে বেশ নাস্তানাবুদই করছিলেন তারা। প্রথমার্ধে তুল্যমূল্য লড়াই হলেও গোলমুখ খুলতে বা সেভাবে কাছাকাছি যেতে পারেনি কোনো দলই। প্রধান্য বরং বেশি ছিল বিপক্ষেরই। দ্বিতীয়ার্ধে তাদের আক্রমণ ঝড়ের চেহারা নিয়েছিল। তখনই  মাথায় আটটা স্টিচ নিয়ে খেলে চলা রৌলিনকে তুলে ৬৫ মিনিটে রফিককে নামিয়ে পালটা আক্রমণে যেতে চেয়েছিলেন স্টিফেন কনস্ট্যানটাইন। আর তার মিনিট চারেক বাদেই সুনীল ম্যাজিক। সংযোজিত সময়ে পরিবর্ত রবীন ও সুনীল নিজে একটি করে সুযোগ নষ্ট না করলে আরও বড়ো ব্যবধানে জিততে পারত ভারত। যদিও কিরগিজস্থানকে হারিয়ে টানা ৮ ম্যাচে জিতল ভারত। কিরগিজস্থান ম্যাচ জেতায় ফিফা ক্রমতালিকায় রেটিং পয়েন্ট বাড়বে ভারতের। পরের বার প্রকাশিত হতে চলা তালিকায় সম্ভবত তিন ধাপ উপরে উঠে ফিফা ক্রমতালিকায় ৯৭ নম্বরে পৌঁছে যাবে ভারত।

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here