অশ্বিন-রাহুল যুগলবন্দিতে জামাইকা টেস্টে চালকের আসনে ভারত

0

টস জিতেও ভুল সিদ্ধান্ত, আর তাতেই দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম দিনেই ম্যাচ রাশ আলগা হতে শুরু করেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের। ভারতের ব্যাটিং লাইনআপকে বিপাকে ফেলার জন্য এক কালে ব্যাটসম্যানদের ত্রাস হয়ে ওঠা জামাইকার সাবাইনা পার্কের পিচে ঘাস ছেড়ে রেখেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। কিন্তু টস জিতে ব্যাটিং করার আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজ অধিনায়ক জেসন হোল্ডার।

ম্যাচ শুরুর পাঁচ ওভারের মধ্যেই বিপক্ষের টপ অর্ডারকে প্যাভিলিয়নে ফেরত পাঠান ইশান্ত শর্মা আর মহম্মদ শামি। তিন উইকেটে ৭, এই অবস্থা থেকে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ম্যাচে ফেরানোর চেষ্টায় নামেন মার্লন স্যামুয়েলস আর জার্মেন ব্ল্যাকউড। ব্ল্যাকউড ঝোড়ো ব্যাটিং করতে থাকেন। দু’জনের মধ্যে পার্টনারশিপ যখন ৮০ রান পেরিয়েছে, আসরে নামেন অশ্বিন। কুম্বলের কোচিং-এ নিজেকে আরও ধারালো করে তোলা অশ্বিন এখন সবুজ পিচেও কেরামতি দেখানোর জন্য বধ্যপরিকর। ৬২ বলে ৬২ রান করা ব্ল্যাকউডকে এলবিডবলু করেন তিনি। এর দশ ওভারের মধ্যেই স্যামুয়েলস (৩৭) আর ডওরিচকে ফেরান তিনি। ওয়েস্ট ইন্ডিজের স্কোর তখন ছয় উইকেটে ১২৭। দলের স্কোর যখন ১৩১, দ্বিতীয় বারের জন্য আঘাত হানেন শামি। এর পর বিশু আর অধিনায়ক হোল্ডারকে প্যাভিলিয়নে ফেরত পাঠিয়ে কেরিয়ারে অষ্টাদশ বার পাঁচ উইকেট নেওয়ার নজির করেন অশ্বিন। দশম উইকেটে কামিন্স আর গ্যাব্রিয়েলের ৩৮ রানের পার্টনারশিপের সৌজন্যে কিছুটা মুখরক্ষা হয় ওয়েস্ট ইন্ডিজের। ১৯৬ রানে অল আউট হয়ে যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে ভালো শুরু করে ভারত। মুরলি বিজয়ের পরিবর্তে এই টেস্টে খেলা ওপেনার কে এল রাহুল আর শিখর ধাওয়ানের (২৭) জুটি ৮৭ রান যোগ করে। ধাওয়ান আউট হয়ে যাওয়ার পর তিন নম্বরে নামেন চেতেশ্বর পুজারা। দিনের শেষে ভারতের স্কোর এক উইকেটে ১২৬। ৭৫ রানে অপরাজিত রাহুল আর ১৮ রানে অপরাজিত পুজারা। ওয়েস্ট ইন্ডিজের স্কোর থেকে এখন মাত্র ৭০ রান দূরে।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন