কুম্বলের সঙ্গে ঝামেলার প্রসঙ্গ ওড়ালেন কোহলি, বিপক্ষের কোন্দলই পাখির চোখ পাকিস্তানের

0
255

বার্মিংহাম: আবার একটি আইসিসি টুর্নামেন্ট, আবার একটি ভারত-পাক ম্যাচ। দু’দেশের রাজনৈতিক জটিলতায় দ্বিপাক্ষিক সিরিজ এখন বন্ধ। কিন্তু বিগত পাঁচ বছরে ভারত-পাক ম্যাচ ছাড়া আইসিসি টুর্নামেন্ট ভাবাই যায় না। ২০১২-এর টি-২০ বিশ্বকাপ, ২০১৩-এর চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি, ২০১৪-এর টি-২০ বিশ্বকাপ, ২০১৫-এর বিশ্বকাপ এবং ২০১৬-এর টি-২০ বিশ্বকাপ, সবেতেই মুখোমুখি হয়েছে প্রতিবেশী এই দু’টি দেশ, এবং সব ক’টিতেই জয়ী দলের নামটি এক। ভারত। পাকিস্তানের ওপর আইসিসি টুর্নামেন্টে ভারতের প্রভাব আরও কিছুটা বাড়ানোর লক্ষ্যেই রবিবার এজবাস্টনের মাঠে নামবে টিম বিরাট।

কোচ-অধিনায়ক সম্পর্কে এখন নাজেহাল অবস্থা ভারতীয় দলের। বিরাটের সঙ্গে কুম্বলের ঝামেলার কথা এখন সর্বজনবিদিত। ভারতীয় শিবিরে এই ঝামেলাকেই পাখির চোখ করেছে পাকিস্তান। যদিও ম্যাচের আগের দিন কুম্বলের সঙ্গে সমস্ত ঝামেলার কথা উড়িয়েই দিলেন বিরাট।

শনিবার সাংবাদিক সম্মেলনে বিরাট বলেন, কুম্বলের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক নিয়ে যা খবর প্রকাশিত হচ্ছে তা সম্পূর্ণ মিডিয়ার হাইপ। তিনি বলেন, “আমাদের মধ্যে কোনো সমস্যাই নেই। কুম্বলের সঙ্গে কাজ করা উপভোগ করছি। আমাদের সম্পর্ক নিয়ে যা খবর বাইরে বেরোচ্ছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যে।” কোচ-ইস্যু ভুলে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতেই এখন তাঁদের নজর বলে জানান কোহলি।

রাজনৈতিক সম্পর্ক ভারত-পাক ক্রিকেটে বারবার প্রভাব ফেলেছে। কখনও যুদ্ধ, কখনও কাশ্মীর নিয়ে দু’দেশের চাপানউতোর, আবার কখনও জঙ্গি হামলা, দু’দেশের সম্পর্ককে একেবারে তলানিতে নিয়ে গেছে। এর বলি হয়েছে ক্রিকেট। আবার যখনই রাজনৈতিক সম্পর্কে বরফ গলেছে, ক্রিকেটও তার জায়গা ফিরে পেয়েছে। কার্গিল যুদ্ধের জেরে পাঁচ বছর ক্রিকেট বন্ধ থাকার পর দু’ দেশের রাজনীতিকদেরই উদ্যোগে ২০০৪-এ আবার শুরু হয় ভারত-পাক ক্রিকেট। ২০০৮-এ পাকিস্তানি জঙ্গিদের মুম্বই হামলার পর থেকে আবার ক্রিকেট বন্ধ। মাঝে ২০১৩-এ পাকিস্তান ভারতে সিরিজ খেলতে এলেও, জঙ্গি হামলাই দু’দেশের ক্রিকেটের মধ্যে মূল বাধা। বিগত এক বছরে তো দু’দেশের রাজনৈতিক সম্পর্ক এক্কেবারে তলানিতে। উরি হামলার পরিপ্রেক্ষিতে ভারতের সার্জিকাল স্ট্রাইক। তার বদলা নিতে পাকিস্তানের তরফ থেকে ভারতীয় সেনা জওয়ানের মুণ্ডু কেটে নিয়ে যাওয়া এবং সর্বশেষ পাকিস্তানকে লক্ষ করে ভারতীয় সেনার পালটা জবাব। সব মিলিয়ে উত্তেজনার পারদ এখন তুঙ্গে। এই উত্তেজনাই এ বার অন্য মাত্রা যোগ করেছে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ম্যাচে।

তবে যখনই ভারত-পাকিস্তান ক্রিকেট হয়েছে, তখনই কিছু মুহূর্ত আমাদের স্মৃতিতে গেঁথে গেছে। চেতন শর্মার বলে মিয়াঁদাদের ছক্কা, শারজায় ইমরানের আগুনে স্পেল, টরোন্টোয় সৌরভের সুইং-এ বিপক্ষ ঘায়েল, সেঞ্চুরিয়ানে সচিনের একা হাতে পাকিস্তান নিধন এবং হালফিলের বিরাট কোহলি বনাম মহম্মদ আমির ডুয়েল। এজবাস্টনে যখন ভারত-পাকিস্তান আবার মুখোমুখি হবে এটা বলাই যায় যে আরও কিছু হৃদয়স্পর্শী মুহূর্ত দর্শকের জন্য অপেক্ষা করে থাকবে।

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিই একমাত্র আইসিসি টুর্নামেন্ট যেখানে ভারতের ওপর কিছুটা প্রভাব বিস্তার করেছে পাকিস্তান। এখনও পর্যন্ত তিন বার ভারতের মুখোমুখি হয়েছে পাকিস্তান, যার মধ্যে দু’টি ম্যাচ জিতেছে তারা। রবিবারের ম্যাচে ধারে ও ভারে পাকিস্তানের থেকে ভারত অনেকটা এগিয়ে থাকলেও তাদের আশা ভারতীয় দলের বর্তমান পরিস্থিতি তাদের পক্ষে যেতে পারে।

এ বার আসা যাক রবিবারের ম্যাচের প্রসঙ্গে।  শুক্রবার বৃষ্টিতে ভেস্তে গিয়েছিল অস্ট্রেলিয়া বনাম নিউজিল্যান্ড ম্যাচটি, সেই এজবাস্টনেই মুখোমুখি ভারত এবং পাকিস্তান। এই ম্যাচেও বৃষ্টির ভ্রূকুটি রয়েছে। বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকলে কিছু পরিবর্তন হতে পারে ভারতীয় দলে। বাদ পড়তে পারেন রবীন্দ্র জাদেজা এবং অশ্বিনের মধ্যে একজন। দলে আসতে পারেন হার্দিক পাণ্ড্য। যুবরাজ সিংহের স্বাস্থ্যও ভাবাচ্ছে ভারতীয় দলকে। যদি জ্বরের জন্য যুবি মাঠে নামতে না পারেন তা হলে তাঁর জায়গায় দলে জায়গা করে নেবেন দীনেশ কার্তিক।

আর কয়েক ঘণ্টার অপেক্ষা, তার পরেই নিজের দলবল নিয়ে পাকিস্তানের তুলনায় কিছুটা অনভিজ্ঞ দলের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়বে বিরাট-বাহিনী।

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here