নয়াদিল্লি: অনিশ্চয়তার অবসান। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে অংশগ্রহণ করতে চলেছে ভারত। রবিবার বিসিসিআইয়ের বিশেষ সাধারণ সভায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে জানানো হয়েছে আসন্ন এই আইসিসি টুর্নামেন্টের জন্য ভারতীয় দল ঘোষিত হবে সোমবার।

বেশ কয়েক মাস ধরেই আইসিসি বনাম ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড যুদ্ধ ক্রমশ বাড়ছিল। নেপথ্যে ছিল আইসিসির নতুন আর্থিক মডেলের প্রস্তাব। প্রস্তাবিত নতুন আর্থিক মডেল অনুযায়ী ভারতের পাওয়ার কথা ২৯ কোটি ৩০ লক্ষ ডলার। কিন্তু ভারতের দাবি ছিল ৫৭ কোটি ডলার অর্থাৎ, প্রস্তাবিত অর্থের দ্বিগুণ। এই নিয়ে গত মাসেই ভোটাভুটি হয় আইসিসিতে এবং সেখানে গোহারান হেরে যায় ভারত। নতুন আর্থিক মডেলের বিরুদ্ধে একমাত্র ভারতই ভোট দিয়েছিল, বাকি ন’টি ক্রিকেট-খেলিয়ে দেশ ছিল মডেলের পক্ষে। এই ভোটে হেরে যাওয়ায় ক্রিকেট নিয়ামক সংস্থার বিরুদ্ধে আরও রণং দেহী মূর্তি ধরে ভারত। নিজেদের দাবি জোরালো করার জন্য চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির দল নির্বাচন অনির্দিষ্টকালের জন্য পিছিয়ে দেয় বিসিসিআই। প্রশ্ন ওঠে ভারত আদৌ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে অংশ নেবে তো!

রবিবার বোর্ডের তরফ থেকে প্রকাশিত একটি বিবৃতিতে জানানো হয়, “চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে ভারতের অংশগ্রহণ করার ব্যাপারে বিসিসিআইয়ের বিশেষ সাধারণ সভায় সবাই একমত হয়েছে।” তবে আইসিসির সঙ্গে দর কষাকষি যে চলবে সেটাও বুঝিয়ে দেওয়া হয়। বিবৃতিতে বলে হয়েছে, “বিসিসিআইয়ের বিভিন্ন দাবিদাওয়ার ব্যাপারে আইসিসির সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাওয়ার জন্য বোর্ডের সচিব আমিতাভ চৌধুরীকে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।”

উল্লেখ্য, চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি থেকে কোনো মতেই যাতে বিসিসিআই সরে না যায় সে জন্য কিছুদিন ধরে চাপ বাড়ছিল বোর্ডের ওপর। টুর্নামেন্টে ভারতের খেলার পক্ষে জোরালো সওয়াল করেছিলেন সচিন, দ্রাবিড়-সহ ভারতের একাধিক প্রাক্তন ক্রিকেটার। চাপ বাড়ছিল সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত কমিটি অফ অ্যাডমিনিস্ট্রেটরের পক্ষ থেকেও। দল নির্বাচন দ্রুত করার জন্য বৃহস্পতিবার বোর্ডকে নির্দেশ দিয়েছিলেন সিওএ চেয়ারম্যান বিনোদ রাই। সেই চাপেই এই অংশগ্রহণ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে মনে করছে বিশেষজ্ঞ মহল।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here