সেন্ট লুসিয়া টেস্টের তৃতীয় দিনটা পুরো জলে ধুয়ে গেল। তার ওপর দু’টো দলের প্রথম দু’টো ইনিংসে রান তোলার গতি ছিল খুব ধীর, ওভারে ২.৫ রান। তা সত্ত্বেও এই টেস্টের ফয়সালা করে ভারত ২-০ এগিয়ে থেকে চার টেস্টের সিরিজ কবজা করে নিল। এই প্রথম ক্যারিবিয়ানে ভারত কোনও সিরিজে একটার বেশি টেস্ট জিতল। এর জন্য বিরাট কোহলির কৃতিত্ব অবশ্যই প্রাপ্য। কিন্তু এই ফলাফলের জন্য অনেক বেশি দায়ী ক্যারিবিয়ানে ক্রিকেটের মান পড়ে যাওয়া।

এতে অবশ্য ভুবনেশ্বর কুমারের দক্ষতাকে খাটো করে দেখা হচ্ছে না। চতুর্থ দিনের লাঞ্চের সময়েও মনে হচ্ছিল ম্যাচ ড্র-এর দিকে গড়াচ্ছে। ভারতের প্রথম ইনিংসে ৩৫৩-এর জবাবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ তখন ২০২-৩। এই অবস্থা থেকে ম্যাচ বার করতে হলে বোলারদের বিধ্বংসী মূর্তি ধারণ করতে হয়। আর মোক্ষম মুহূর্তে ঠিক সেই কাজটাই করলেন ভুবনেশ্বর কুমার। দেড় বছরে প্রথম টেস্ট খেলতে নেমে ভুবনেশ্বর তাঁর মারাত্মক সুইং-এ একেবারে গুঁড়িয়ে দিলেন প্রতিপক্ষকে। ২০২-৩ থেকে ২২৫। লাঞ্চের পরে অল আউট ওয়েস্ট ইন্ডিজ। একটা সময়ে ভুবনেশ্বরের বোলিং পরিসংখ্যান দাঁড়াল ১১.৪-৬-১৬-৫।

জয়ের লক্ষ্য মাথায় নিয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে দ্রুত রান তোলার চেষ্টা করে ভারত। চতুর্থ দিনের শেষে ১৫৭-৩ করে তারা। শেষ দিনে মাত্র ৪৫ মিনিটে ৬০ রান যোগ করে ২১৭-৭-এ ভিক্লেয়ার করে দেয় কোহলির ভারত।

এর পরও ওয়েস্ট ইন্ডিজ ড্র-এর জন্য খেলতে পারত। কিন্তু উইকেট আঁকড়ে পড়ে থাকার জন্য যে ধৈর্য, যে স্ট্যামিনা, যে স্কিলের দরকার ছিল তা দেখাতে পারেননি ব্যাটসম্যানরা। ভারতীয় বোলাররা ওয়েস্ট ইন্ডিজের দ্বিতীয় ইনিংসে ধস নামিয়ে দিলেন। মহম্মদ শামি (৩-১৫), ইশান্ত শর্মা (২-৩০), জাডেজার (২-২০) বোলিঙের দৌলতে ভারত মাত্র ১০৮ রানে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে দ্বিতীয় ইনিংস গুটিয়ে নিতে বাধ্য করল।  

বিরাটের টুইট           

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here