iniesta

বার্সেলোনা: গত কয়েক দিন ধরেই উত্তপ্ত হয়ে রয়েছে স্পেন। ফুটবলে তো ছিলই, রাজনৈতিক ভাবেও এখন সম্মুখসমরে মাদ্রিদ এবং বার্সেলোনা। স্পেন থেকে বেরিয়ে আলাদা দেশের জন্য আন্দোলন ক্রমশ জোরদার হচ্ছে কাতালোনিয়া অঞ্চলে। এমনকি বার্সেলোনার মানুষরা নিজেদের স্প্যানিশের বদলে কাতালান হিসেবে পরিচয় দিচ্ছেন। এই আবহে ফুটবলাররাও কি নিজেদের চেপে রাখতে পারেন!

কাতালোনিয়ার সমস্যা সমাধানের জন্য আলোচনাই একমাত্র রাস্তা, এমনই মন্তব্য করলেন স্প্যানিশ তারকা তথা বার্সেলোনার অধিনায়ক আন্দ্রে ইনিয়েস্তা। নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে তিনি বলেন, “আমি এর আগে কখনও কোনো রাজনৈতিক ভাবে উত্তপ্ত পরিস্থিতি নিয়ে মন্তব্য করিনি, কিন্তু এখন যেটা হচ্ছে সেটা অভূতপূর্ব।”

তিনি আরও বলেন, “এই সমস্যার জন্য যারা দায়ী তাদের আলোচনায় বসতে হবে। শান্তিতে থাকা আমাদের অধিকার।”

২০১০-এ স্পেনের বিশ্বজয়ের তারকা ইনিয়েস্তার জন্ম মধ্য স্পেনের কাস্তিয়া-লা মাঞ্চা অঞ্চলে। তবে বারো বছর বয়সে বার্সেলোনার অ্যাকাডেমিতে চলে আসেন তিনি।

গত রবিবারই কাতালোনিয়ায় গণভোট নিয়ে তুমুল হট্টগোল হয়। স্পেন সরকার এই ভোটকে অবৈধ ঘোষণা করলেও, নিষেধাজ্ঞা অবজ্ঞা করে ভোট দেন মানুষজন। কাতালোনিয়ার স্বাধীনতার পক্ষে ভোট পড়ে প্রায় ৯০ শতাংশ। এর পরেই স্পেনের পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ শুরু হয় কাতালানদের।

ইনিয়েস্তার পাশাপাশি শান্তি স্থাপনের আহ্বান জানিয়েছে বার্সেলোনাও। বিশ্বের কাছে কাতালানদের মুখ এখন বার্সেলোনা। কিছু দিন আগে একটি বিবৃতিতে ক্লাবটি জানায়, “কাতালোনিয়া যে সমস্যার মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে তার সমাধানসূত্র বের করার জন্য সব পক্ষকে আলোচনার টেবিলে বসার আহ্বান জানাচ্ছি আমরা।” কাতালানদের মতকে গুরুত্ব দিয়ে আলোচনার প্রক্রিয়া শুরু করার কথা বলেছে ক্লাবটি।

কাতালোনিয়ার গণভোটের ব্যাপারে ধিকিধিকি একটা ক্ষোভের আগুন কিন্তু স্পেনের জাতীয় দলের মধ্যেও জ্বলছে। গণভোটের পরেই স্বাধীন কাতালোনিয়ার পক্ষে নিজের মত প্রকাশ করেছিলেন বার্সেলোনার তারকা এবং ২০১০ বিশ্বকাপের আরও এক নায়ক জেরার্দ পিকে। এর পরেই তাঁর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখানো শুরু করে কাতালোনিয়া-বিরোধীরা।

এ দিকে দলে ভাঙন ধরতে পারে, সে কথা না ভেবেই স্পেনের রাজার করা মন্তব্যকে সমর্থন করেন জাতীয় দলের অধিনায়ক তথা রেয়াল মাদ্রিদের তারকা সের্খিও রামোস। উল্লেখ্য, একটি টিভি ভাষণে কাতালোনিয়ার গণভোটকে বেআইনি আখ্যা দিয়েছিলেন স্পেনের রাজা পঞ্চম ফিলিপে। পুলিশি সংঘর্ষে আহত কাতালোনিয়াপন্থী মানুষদের প্রতি কোনো সহমর্মিতার বার্তা দেননি রাজা। রমোস বলেন, “রাজার বক্তব্যকে টুপি খুলে সম্মান করি।”

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here