সুপার ওভারে পঞ্জাবকে হারিয়ে জয় ছিনিয়ে নিল দিল্লি

0

দিল্লি ক্যাপিটলস্‌: ১৫৭-৮ (মার্কাস স্টয়নিস ৫৩, শ্রেয়স আইয়ার ৩৯, শামি ৩-১৫, কটরেল ২-২৪) ও ৩ (৩ বলে)

কিংস ইলেভেন পঞ্জাব: ১৫৭-৮ (ময়াঙ্ক আগরওয়াল ৮৯, রাবাদা ২-২৮, স্টয়নিস ২-২৯) ও ২ (১ ওভারে)

Shyamsundar

খবর অনলাইন ডেস্ক: এই মরশুমের আইপিএল-এর দ্বিতীয় ম্যাচ গড়াল সুপার ওভারে। টাই ভাঙার খেলায় প্রথমে ব্যাট করে ১ ওভারে মাত্র ২ রান তোলে পঞ্জাব। দিল্লি জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় ৩ রান তুলে নেয় ৩ বলে।

দিল্লির দেওয়া টার্গেট তাড়া করতে গিয়ে গোড়াপত্তনটা খারাপ করেনি পঞ্জাব। চার ওভারে তাদের রান ওঠে বিনা উইকেটে ২৮। দলের ৩০ রানের মাথায় অধিনায়ক কে এল রাহুল বিদায় নিতেই বিপর্যয়ের সূত্রপাত। রাহুল মোহিত শর্মার বলে বোল্ড হন। তাঁর সংগ্রহ ১৯ বলে ২১ রান।

একের পর এক উইকেট পড়তে থাকে। ৫৫ রানের মধ্যে চলে যায় ৫ উইকেট। কিন্তু এক দিকে অবিচল থাকেন ময়াঙ্ক আগরওয়াল। তবে ৫ উইকেট চলে যাওয়ার পর ময়াঙ্কের সঙ্গে ম্যাচের রাশ কিছুটা ধরেন কৃষ্ণাপ্পা গৌতম। ২০ রান করে কৃষ্ণাপ্পা যখন আউট হন তখন দলের স্কোর ৬ উইকেটে ১০১ রান। দলের হাতে তখন ২৭ বল।

ময়াঙ্কের সঙ্গী হন জর্ডন। কিন্তু বিধ্বংসী মেজাজে ব্যাট করে দলকে ক্রমশ জয়ের দোরগোড়ায় নিয়ে যেতে থাকেন ময়াঙ্ক। শেষ পর্যন্ত নিজস্ব ৮৯ রানে ময়াঙ্ক যখন স্টয়নিসের বলে হেটমেয়ারকে ক্যাচ দেন তখন দিল্লির স্কোরের সমান পঞ্জাব।

কিন্তু একটি বল তখনও বাকি ছিল। সেটি কাজে লাগাতে ব্যর্থ হল পঞ্জাব। স্টয়নিস তাঁর শেষ ওভারের শেষ বলে জর্ডনকে তুলে নিয়ে দিল্লির জন্য আশা জিইয়ে রাখলেন।

এর আগে কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের অধিনায়ক কে এল রাহুল টসে জিতে দিল্লি ক্যাপিটলস্‌-কে ব্যাট করতে পাঠান। এবং রাহুলের চাল কাজে দেয় বলাই বাহুল্য। দিল্লির ইনিংসের শুরুতেই ঝটকা।

দিল্লির হয়ে ওপেন করতে নামেব পৃথ্বী শ এবং শিখর ধাওয়ান। মোটামুটি ধীরেসুস্থে শুরু করেন পৃথ্বী। শেলডন কটরেলকে চতুর্থ বলে সীমানার বাইরে পাঠিয়ে এবং পরের বলে ১ রান করে প্রথম ওভারে ৫ রান সংগ্রহ করেন পৃথ্বী। পরের ওভার করতে আসেন বাংলার মহম্মদ শামি। সেই ওভারের চতুর্থ বলেই আঘাত। রান আউট হয়ে যান শিখর। ব্যাট করতে নামেন সিমরন হেটমেয়ার।

দিল্লির প্রথম উইকেট পতনের ক্ষেত্রে শামির পরোক্ষ কৃতিত্ব থাকলেও, দলের চতুর্থ ওভারে এবং নিজের দ্বিতীয় ওভারে বড়ো রকমের আঘাত হানেন মহম্মদ শামি। চতুর্থ ওভারের তৃতীয় বলে আউট হন পৃথ্বী। তাঁর মিস টাইম শট সরাসরি চলে যায় মিড উইকেটে জর্ডনের হাতে। ওই ওভারের শেষ বলে আবার আঘাত। এ বার হেটমেয়ার শর্ট এক্সট্রা কভারে ময়াঙ্ক আগরওয়ালের হাতে ক্যাচ দিয়ে প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন।

প্রাথমিক ঝটকা কাটিয়ে কিছুটা থিতু হয় দিল্লির ব্যাটিং শ্রেয়স আইয়ার ও ঋষভ পন্থের হাত ধরে। দলকে তাঁরা টেনে নিয়ে যান চতুর্দশ ওভারের শেষ পর্যন্ত। কিন্তু ওই ওভারেরই শেষ বলে ঋষভ পন্থকে তুলে নেন রবি বিশ্নই। আর পরের ওভারেই আবার আঘাত। এবং আঘাত এল সেই শামির হাত ধরে। আউট হলেন শ্রেয়স আইয়ার। ১৫ ওভারের শেষে দিল্লির রান ৫ উইকেটে ৯৩। বেশ গাড্ডায় পড়ে যায় দিল্লি।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

বদলে যাওয়া আইপিএলের শুরুতেই ‘বদলা’, জয়যাত্রা শুরু ধোনিবাহিনীর

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন