জল্পনার অবসান, আই লিগে মোহনবাগান স্পনসরশিপ চুক্তিতে আবদ্ধ হচ্ছে রিলায়েন্সের সঙ্গে

0

শৈবাল বিশ্বাস[/caption] গত ২০ মে খবর অনলাইন প্রথম জানিয়েছিল, মোহনবাগানের স্পনসর হতে চাইছে রিলায়েন্স গোষ্ঠী। অনেক টালবাহানার পর অবশেষে সত্যি হতে চলেছে সেই খবর। আইএসএলে মোহনবাগান-ইস্টবেঙ্গলের খেলা না খেলা নিয়ে নীতা আম্বানির কোম্পানির সঙ্গে মন কষাকষি হলেও ব্র্য‌ান্ড স্পনসরের ক্ষেত্রে রিলায়েন্স কিন্তু মোহনবাগানকে হাতছাড়া করতে রাজি নয়। অতি সম্প্রতি মুম্বইতে মোহন-কর্তাদের সঙ্গে চূড়ান্ত আলোচনায় রিল্য‌ায়েন্স টেলি কমিউনিকেশন জিও ব্র্য‌ান্ড দিতে রাজি হয়েছে। চূড়ান্ত চুক্তি হবে সেপ্টেম্বরে কলকাতায়। স্থির হয়েছে, মোহনবাগান আই লিগে জিও ব্র্য‌ান্ড ব্য‌বহার করার বিনিময়ে ১০ কোটি টাকা সাহায্য‌ পাবে(চুক্তি হওয়ার আগে যদি কোনো সংস্থা এর চেয়ে বেশি টাকা মোহনবাগানকে দিতে চায়, তাহলে শেষ মুহূর্তে খেলা ঘুরে যেতেও পারে, তবে তার সম্ভাবনা প্রায় নেই বললেই চলে)। তবে ওই আলোচনায় আরও স্থির হয়েছে, আগামীদিনে জিও ব্র্য‌ান্ডটি মোহনবাগানের পাকাপাকি ব্র্য‌ান্ড হবে। আইএসএলে খেলার জন্য‌ মোহনবাগান ইতিমধ্য‌েই লিমিটেড কোম্পানিতে পরিণত হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। মোহনবাগান অ্য‌াথলেটিক ক্লাবের সঙ্গে সম্পর্কবিহীন এই কোম্পানিটি সবুজ মেরুন জার্সি ব্য‌বহার করলেও সম্পূর্ণ ব্য‌ক্তি মালিকানাধীন কোম্পানি হবে। কোম্পানির মালিকানা থাকবে টুটু বসু এবং অঞ্জন মিত্রর হাতে। মোহনবাগানের কার্যকরী সমিতি এই প্রস্তাবে সম্মত হয়েছে। ক্লাবের পক্ষ থেকে ইতিমধ্য‌েই জানানো হয়েছে, কোম্পানিতে পরিণত হলেও ম্য‌াকডাওয়েল মোহনবাগান যেমন আদি মোহনবাগান হিসাবেই তার অস্তিত্বের প্রমাণ রেখেছিল, এ ক্ষেত্রেও তাই হবে। কোম্পানি গঠন শুধুমাত্র কৌশলী পদক্ষেপ। আরও পড়ুন: এক্সক্লুসিভ: মোহনের জন্য‌ হাত বাড়িয়েছে রিলায়েন্স, ইস্টের জন্য‌ আদিত্য‌ বিড়লা গ্রুপ প্রশ্ন উঠেছে, আগামীদিনে মোহনবাগান যদি জিও ব্র্য‌ান্ড ব্য‌বহার করে আইএসএলে খেলে তাহলে নীতা আম্বানির নিজের টিমের কী হবে। পরিকল্পনা যেদিকে এগোচ্ছে তাতে বোঝা যাচ্ছে একই কর্পোরেট গোষ্ঠীর দুটি টিমকে স্পনসর করার ব্য‌াপারে আরও বেশি করে উৎসাহ দান করা হবে। এর আসল উদ্দেশ্য‌ হল ভারতীয় ফুটবলের বাজারকে নির্দিষ্ট গোষ্ঠীর মধ্য‌ে গুটিয়ে আনা। এআইএফএফ-এরও এতে সম্মতি আছে। এর ফলে প্রতি বছর কোন টিম থাকবে, কোন টিম বসে যাবে এই নিয়ে অতিরিক্ত মানসিক ঝক্কি অনেকটাই কমবে। অর্থাৎ এআইএফএফের আসল পরিকল্পনা হল ভারতীয় ফুটবলের দুটি লিগকেই ‘ক্লোজড টুর্নামেন্ট’ হিসাবে প্রচার করা। এতে বিশ্বের দরবারে ভারতীয় ফুটবল সম্পর্কে আগ্রহ আরও বাড়বে বলে মনে করা হচ্ছে। কারণ তখন গোটা বিশ্বই জানবে ভারতীয় ফুটবল বহুজাতিকের মালিকানা ধন্য‌ কার্নিভাল। যাতে বিনিয়োগ করলে লোকসান হওয়ার সম্ভাবনা কম। আরও পড়ুন: সত্যি হওয়ার পথে খবর অনলাইনের খবর, মোহনবাগানের স্পনসর হতে চলেছে রিলায়েন্স মোহনবাগানের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ইস্টবেঙ্গলও জিও ব্র্য‌ান্ড ব্য‌বহার করতে চেয়েছিল কিন্তু বেঙ্গালুরুর একটি কোম্পানির সঙ্গে তাঁদের কথাবার্তা অনেকটা এগিয়ে যাওয়ায় তারা মাঝপথে রিলায়েন্সের সঙ্গে আলোচনা বন্ধ করে দেয়। এদিকে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের প্রাক্তন কর্ণধার শ্রীনিবাসন ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের ব্য‌াপারে হঠাৎই আগ্রহী হয়ে উঠেছেন বলে খবরে প্রকাশ।]]>

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.