অ-সহবাগোচিত ঢঙে সহবাগকে স্মরণ করালেন করুন, ৪-০’র পথে ভারত

0

চেন্নাই: এই মুহূর্তে নিশ্চয়ই বিরাট কোহলিকে ধন্যবাদ দিচ্ছেন বীরেন্দ্র সহবাগ। কোনো ভাবেই করুন নায়ারকে থামানো যেত না যদি না ইনিংস ডিক্লেয়ার করতেন ভারত অধিনায়ক। তৃতীয় দিন যে সময় আদিল রশিদের বলে ক্যাচ তুলে ফিরে যান রাহুল, এক দিন পরে ঠিক সেই সময়েই ২৯৯-তে দাঁড়ানো করুনকে বল করলেন রশিদ। প্রথম বলে এলবিডব্লিউর আবেদন করল ইংল্যান্ড শিবির। পরের বলে ক্যাচ তুললেন করুন, কিন্তু  ফিল্ডারের একটু সামনে ড্রপ করে বল চলে গেল মাঠের বাইরে। সহবাগের পর দ্বিতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে তিনশোর গণ্ডি পেরলেন তিনি। ভারত ইনিংস না ডিক্লেয়ার করলে সহবাগের ৩১৯-এর রেকর্ডও ভেঙে যেত।

তিনশো রান বিশ্ব ক্রিকেটে তো অনেকেই করেন, কিন্তু করুনের তিনশোটা একটু বেশি স্পেশাল। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের ইতিহাসে করুনই একমাত্র ব্যাটসম্যান যিনি  জীবনের প্রথম সিরিজে তিনশো করলেন। পাশাপাশি, জীবনের প্রথম শতরানই ত্রিশতরান, এমন ব্যাটসম্যানদের একটি বিরল ক্লাবের সদস্য হলেন তিনি। যেই ক্লাবে করুনের আগে সদস্য ছিলেন মাত্র দু’জন গ্যারি সোবার্স আর ববি সিম্পসন।

সিরিজের আগে রোহিত শর্মা চোট না পেলে ১৫ জনের ভারতীয় দলে তো করুনের ঢোকা হতই না, এমনকি অজিঙ্ক রাহানে টেস্টের আগে চোট না পেলে এই টেস্টেও হয়তো খেলা হত না কর্নাটকের এই তরুণের। নির্বাচকদের এখন প্রধান সমস্যা রোহিতকে না হয় বসিয়ে দেওয়া হল, কিন্তু অজিঙ্ক রাহানে ফিট হয়ে গেলে কী হবে? রাহানের মতো প্রতিভাকে দলের বাইরে রাখার কোনো প্রশ্নই নেই, আবার করুনকেও বসানো যাবে না। একটাই উপায় রইল আবার সেই সাত ব্যাটসম্যান,  চার বোলার কম্বিনেশনে ফিরে যাওয়া।

করুনের পাশাপাশি একটু হলেও উল্লেখ করা উচিত রবিচন্দ্রন অশ্বিনের নাম। এই সিরিজে এখনও চারটি অর্ধশতরান-সহ ৩০৬ রান আর বল হাতে ২৮-এর গড়ে ২৮টি উইকেট তুলে বিশ্বের সর্বকালের সেরা অলরাউন্ডারদের একজন হয়ে ওঠার দাবিদার করে তুলেছেন নিজেকে। পঞ্চম দিন ভারতকে জেতানোর জন্য অশ্বিন যে নিজেকে একদম উজাড় করে দেবেন তা এখনই বলে রাখা যায়। অশ্বিনের ৬৪-এর পাশাপাশি ৫১ করে করুনকে যোগ্য সঙ্গত দেন রবীন্দ্র জাদেজাও।

সাত উইকেটে ৭৫৯-এ ইনিংস শেষ করে ভারত। টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে এটিই ভারতের সর্বোচ্চ স্কোর। ২৮২ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করেছে ইংল্যান্ড। দিনের শেষে তাদের স্কোর বিনা উইকেটে ১২। পঞ্চম দিন। চিপকের পিচ। ভারতের হাতে অশ্বিন-জাদেজা-অমিত মিশ্র। ইংল্যান্ডকে স্পিনের মায়াজালে পিষে ফেলতে আর কী দরকার!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.