কলকাতা: নতুন বাংলা বছরের প্রথম দিন সমর্থকদের আনন্দ দিয়ে ফের জিতল কলকাতা। এ দিন জয় কিন্তু কোনো এক জনের করিশ্মায় আসেনি, বরং কলকাতা জিতল দলগত ভাবে। তবে মুখ্য ভূমিকা পালন করলেন রবিন উথাপ্পা।  

ওপেনিং-এ সুনীল নারিনকে পাঠানোর ফাটকা যে রোজ রোজ চলবে না তা এ দিন প্রমাণিত হয়ে গেল। ৯ বলে মাত্র ৬ রান করার পর ভুবনেশ্বর কুমারের ইয়র্কার সামলাতে পারেননি তিনি। বড়ো রান পাননি গৌতম গম্ভীরও। কিন্তু কেকেআরকে চাপে পড়তে দেননি রবিন উথাপ্পা। মনীশ পাণ্ডেকে সঙ্গে নিয়ে চাপমুক্ত করেন কেকেআরকে। দু’জনের মধ্যে ৭৭ রানের পার্টনারশিপ তৈরি হয়। উথাপ্পা ফিরে গেলেও রানের গতি বাড়ান মনীশ পাণ্ডে। তবে শেষ তিন ওভারে হায়দরাবাদ বোলারদের দাপটে ১৭২-এর বেশি তুলতে পারেনি কেকেআর।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে কখনওই ছন্দে ছিলেন না হায়দরাবাদের দুই ওপেনার। পেসারদের বিরুদ্ধে যাও বা রান আসছিল, স্পিনাররা আসার পর রানের গতিতে ব্রেক লেগে যায়। এক দিকে কুলদীপ যাদব যখন চার ওভার হাত ঘুরিয়ে মাত্র ২৩ রান দিয়েছেন, তখন নারিনের পরিসংখ্যান আরও ঈর্ষনীয়। চার ওভারে তিনি দিয়েছেন মাত্র ১৮। কুলদীপের তো এক ওভারে প্রায় মেডেন ওভারই দিয়ে দিচ্ছিলেন ওয়ার্নারকে। সেই ওভারে কুলদীপের পাঁচটা বল কোনো রকমে সামলে ছ’ নম্বর বলে এক রান নেন তিনি। অন্য দিকে এক ওভার বল করে মাত্র দু’ রান দিয়ে এক উইকেট নেন তিনি। এরই মধ্যে একটা শেষ চেষ্টা করছিলেন যুবরাজ সিংহ। কিন্তু তিনি আউট হতেই হায়দরাবাদ ইনিংসে মোটামুটি যবনিকা পড়ে যায়।   

চার ম্যাচে তিনটে জয়ে নিয়ে এই মুহূর্তে টেবিল শীর্ষে কেকেআর।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here