কিংসটন: কথা ছিল গেলস্টর্মের, হয়ে গেল লিউইসস্টর্ম। তাঁরই শত রানে ভর করে টি-২০ ম্যাচে ভারতকে হেলায় হারিয়ে এক দিনের সিরিজে হারের বদলা নিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। রবিবার কিংসটনের সাবিনা পার্কে আয়োজিত এক মাত্র টি-২০ ম্যাচে নয় বল বাকি থাকতেই নয় উইকেটে জয় ছিনিয়ে নিল তারা। ৬২ বলে ১২৫ রান করে অপরাজিত থাকেন ইভিন লিউইস। ২৯ বলে ৩৬ রান করে তাঁকে যোগ্য সঙ্গ দেন মার্লন স্যামুয়েলস।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে টানা ছ’ বার টসে হারলেন বিরাট কোহলি। ওয়েস্ট ইন্ডিজের অধিনায়ক কার্লোস ব্রাথওয়েট ভারতকে ব্যাট করতে পাঠান। নির্ধারিত ২০ ওভারে ভারত করে ৬ উইকেটে ১৯০। মন্দ শুরু করেনি ভারত। ঝড়ের গতিতে রান তুলছিলেন কোহলি ও শিখর ধাওয়ান। কিন্তু ছন্দ পতন ঘটল ৬৪ রানে। ২২ বলে ৩৯ রান করে আউট হয়ে যান কোহলি। দু’টি বল পরেই ধাওয়ান, তাঁর সংগ্রহ ১২ বলে ২৩। একই ওভারে দু’টি উইকেট নিয়ে ভারতের ব্যাটে জোর ঝটকা দেন উইলিয়ামস। কিন্তু রানের গতি খুবই ভালো ছিল, ৫.৫ ওভারে ২ উইকেটে ৬৫। ভারতীয় ইনিংসকে টেনে নিয়ে যাওয়ার দায়িত্ব নেন দীনেশ কার্তিক ও ঋষভ পন্থ। কিন্তু স্কোরবোর্ডে ৮৬ রান যোগ হওয়ার পর আবার ধাক্কা। ১৫.৪ ওভারে আউট হন পন্থ (৩৫ বলে ৩৮)। তার ৫ রান পরেই ধোনি। তাঁর সংগ্রহ ৩ বলে মাত্র ২ রান। শেষ পর্যন্ত ভারত শেষ করে ১৯০ রানে। সর্বোচ্চ রান দীনেশ কার্তিকের, ২৯ বলে ৪৮।

কে ভেবেছিল এক দিনের সিরিজে ভারতের বিরুদ্ধে যাঁর মোট রান ছিল ১২১ বলে ৬৭, সেই এভিন লিউইস এমন বিধ্বংসী মেজাজে আজ অবতীর্ণ হবেন। দর্শকরা আশা করেছিলেন গেল-ঝড় দেখবেন, তার বদলে তাঁরা লিউইসের ব্যাটে ঝড় দেখলেন। সত্যিই ঝড়। ওয়েস্ট ইন্ডিজের ওপেন করতে নেমেছিলেন ক্রিস গেল আর এভিন লিউইস। প্রথম উইকেট যখন পড়ে স্কোরবোর্ডে তখন ৮২। আউট হন গেল, তাঁর সংগ্রহ ২০ বলে ১৮। এতেই অনুমেয়, কী সাঙ্ঘাতিক ভাবে শুরু করেছিলেন লিউইস। পুরো ম্যাচ জুড়ে এই মেজাজই ধরে লাগলেন। আর ঠান্ডা মাথায় তাঁকে সঙ্গ দিয়ে গেলেন মার্লন স্যামুয়েলস। ১৯১ রান তাড়া করতে গিয়ে এক ডজন ছক্কা মারলেন লিউইস। তিনি একাই করলেন ১২৫। অপর প্রান্ত থেকে রান এল ৫৪, অতিরিক্ত ১৫। যে মহম্মদ শামি শেষ এক দিনের ম্যাচে ৪টি উইকেট তুলে নিয়েছিলেন, সেই শামি দিশেহারা হয়ে গেলেন লিউইসের ব্যাটে। ৩ ওভারে রান দিলেন ৪৬। তাঁর অন্যতম খারাপ পারফরম্যান্স।

 

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন