আর কয়েক ঘণ্টার অপেক্ষা। তার পরই শুরু হবে দক্ষিণ আমেরিকার ফুটবলের ইতিহাসে সব থেকে পুরোনো দ্বৈরথ। আর্জেন্তিনা বনাম উরুগুয়ে। স্থানীয় ভাষায় একে বলে ‘ক্লাসিকো দেল রিও দে লা প্লাতা’। অর্থাৎ প্লাতা নদীর ক্লাসিক। আর্জেন্তিনা আর উরুগুয়ের সীমান্ত এই প্লাতা নদী দিয়ে বিভাজিত, তাই এই যুদ্ধের এমন নামকরণ। বার্সেলোনাভক্তরা দ্বিধাবিভক্ত। এক দিকে অবসর ভেঙে ফেরা মেসি, অবশ্য যদি তিনি ফিট থাকেন আর খাবিয়ের মাসচেরানো। অন্য দিকে থাকবেন লুইস সুয়ারেজ।

২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপের কোয়ালিফায়ারের ম্যাচে, শুক্রবার ভারতীয় সময় ভোর সাড়ে ৪টেয় আর্জেন্তিনার মেন্দোজায় নিজেদের মধ্যে ১৮৪তম ম্যাচে মুখোমুখি হবে দক্ষিণ আমেরিকার চির-প্রতিদ্বন্দ্বী আর্জেন্তিনা আর উরুগুয়ে। কোপা আমেরিকা ফাইনালে হারের পর, অলিম্পিক বাদ দিলে এই প্রথম প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচে নামছে আর্জেন্তিনা। চিলের কাছে কোপা আমেরিকা ফাইনালে হারের পর প্লাতা নদী দিয়ে অনেক জল গড়িয়েছে। নতুন কোচ এদগার্দো বাউজার তত্ত্বাবধানে নতুন ভাবে তৈরি হচ্ছে আর্জেন্তিনা দল।

তবে সব আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকবেন লিওনেল মেসি। আচমকা অবসর নিয়ে নেওয়া আর অবসর ভেঙে ফিরে আসা নিয়ে কম নাটক হয়নি। মেসির সিদ্ধান্তে বেজায় চটেছেন ফুটবলের রাজপুত্র দিয়েগো মারাদোনা। তবু আর্জেন্তিনা-সহ বিশ্বের অধিকাংশ মানুষের কাছেই নয়নের মণি তিনি। শুক্রবার ভোরে তাই সবাই তাকিয়ে থাকবে আরও এক বার মেসি ম্যাজিক দেখার জন্য। অবশ্য এই ম্যাচে তাঁর খেলা নিয়ে যথেষ্ট অনিশ্চয়তা রয়েছে। গত সপ্তাহে লা লিগার আতলেতিকো বিলবাও ম্যাচে হ্যামস্ট্রিং-এ চোট পাওয়া মেসি আদৌ ফিট হয়ে নামতে পারবেন কি না তা নিয়ে জল্পনা রয়েছে।

অন্য দিকে উরুগুয়ে চাইবে কোয়ালিফাইং স্টেজের পয়েন্ট টেবিলে তাদের শীর্ষ স্থান ধরে রাখতে। ২০১৫ থেকে শুরু হওয়া কোয়ালিফায়ারে ৬টি ম্যাচে ১৩ পয়েন্ট পেয়েছে তারা। অন্য দিকে ৬ ম্যাচে ১১ পয়েন্ট পেয়ে তিন নম্বরে রয়েছে আর্জেন্তিনা।         

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here