১০০ মিটার বাটারফ্লাই ইভেন্টের পর ‘আইডল’ ফেল্পসের সঙ্গে ভক্ত জোসেফ স্কুলিং।    

আট বছর আগে সিঙ্গাপুরে মাইকেল ফেল্পসের সাথে দেখা হয়েছিল তাঁর খুদে ভক্ত বছর তেরোর জোসেফ স্কুলিং-এর। সে দিনের সেই উঠতি সাঁতারুই শুক্রবার তাঁর ‘গুরুদেব’কে হারিয়ে ১০০ মিটার বাটারফ্লাই ইভেন্টে সোনা জিতে নিয়েছিলেন।  নিজের খুদে ফ্যানের কাছে আগের দিন হেরে যাওয়া স্পোর্টিংলি নিলেও মন থেকে মেনে নিতে খুব কষ্ঠ হয়েছিল ফেল্পসের। তাই নিজের সাঁতার কেরিয়ারে ইতি টানার আগে শনিবার ফের সোনা জিতলেন তিনি। পুরুষদের ৪ X ১০০ মিটার মেডলিতে কডি মিলার, রায়ান মার্ফি আর ন্যাথান আদ্রিয়ানকে সঙ্গে নিয়ে অলিম্পিক কেরিয়ারের ২৩তম সোনা জিতলেন ফেল্পস। সেই সঙ্গেই সাঁতারকে চিরতরে বিদায় জানালেন তিনি। ফেল্পসের কীর্তি ছাড়াও শনিবার দেশ হিসেবে এক অনন্য নজির গড়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। মহিলাদের ৪ X ১০০ মিটার মেডলি রিলেতে সোনা জেতেন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যাথলিন বেকার, লিলি কিং, সিমনে মানুয়েল আর ডানা ভলমের। অলিম্পিকের ইতিহাসে এটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এক হাজারতম সোনা। শনিবারের পর পদক তালিকায় শীর্ষেই রইলেন মার্কিনরা। তাদের ঝুলিতে মোট ৬০টি পদক যার মধ্যে রয়েছে ২৪টি সোনা, ১৮টি রুপো আর ১৮টি ব্রোঞ্জ।

শনিবার রিও অলিম্পিকের আসরে প্রথম বারের জন্য নামলেন বিশ্বের দ্রুততম মানুষ উসেন বোল্ট। ১০০ মিটারের রেসে হিটে জিতে সহজেই সেমিফাইনালে উঠলেন তিনি। ১০.০৭ সেকন্ডে তাঁর দৌড় শেষ করেন বোল্ট। সোমবার, ভোর সাড়ে ৫টায় সেমিফাইনালে নামবেন বোল্ট। 

পদক তালিকায় দ্বিতীয় স্থানেই রয়েছে চিন। ১৩টি সোনা, ১১টি রুপো আর ১৭টি ব্রোঞ্জ-সহ মোট ৪১টি পদক জিতেছে চিন। তিন নম্বরে উঠে এসেছে ব্রিটেন। শনিবার রোয়িং, দশ হাজার মিটার দৌড় আর সাইক্লিং-এর টিম পারসুটে সোনা জিতেছে ব্রিটেন। এখনও পর্যন্ত তাদের পদক সংখ্যা ৩০। ১০টি সোনা ছাড়াও যার মধ্যে রয়েছে ১৩টি রুপো আর ৭টি ব্রোঞ্জ। চতুর্থ স্থানে রয়েছে জার্মানি। ৮টি সোনা, ৫টি রুপো আর ৩টি ব্রোঞ্জ-সহ তাদের পদক সংখ্যা ১৬। পঞ্চম স্থানে জাপান। তাদের দখলে ২৪টি পদক। এর মধ্যে রয়েছে ৭টি সোনা, ৩টি রুপো আর ১৪টি ব্রোঞ্জ।

ষষ্ঠ, সপ্তম, অষ্টম, নবম আর দশম স্থানে রয়েছে যথাক্রমে রাশিয়া, অস্ট্রেলিয়া, ইতালি, দক্ষিণ কোরিয়া আর ফ্রান্স। ২৬ নম্বর স্থানে রয়েছে আয়োজক দেশ ব্রাজিল। 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here