কলকাতা: আগামী শনিবার মোহনবাগান ক্লাবের বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) ঘিরে বর্তমান শাসক-বিরোধী দুইপক্ষের মধ্যেই উত্তেজনা তুঙ্গে। দুই পক্ষই বলছে, এজিএমে মারামারি হবে। এই সভা নিয়ে অঞ্জন মিত্র গোষ্ঠীর পরিকল্পনা কী?

জানা গিয়েছে, মূলত দু’টি বিষয়কে প্রাধান্য দিয়ে ঘুটি সাজাচ্ছে অঞ্জন মিত্রের শাসক গোষ্ঠী। প্রথমত, মোহনবাগানের কোম্পানিগত চরিত্র বদল করা। বর্তমানে প্রাইভেট লিমিটেড হিসাবে নথিভুক্ত কোম্পানিকে পাবলিক লিমিটেডে রূপান্তরিত করা। সে ক্ষেত্রে পাবলিক লিমিটেডে শেয়ার গ্রহণকারী সদস্য সংখ্যা বাড়ানো সম্ভব হবে।

দ্বিতীয়ত, মোহনবাগানের পরিচালনমণ্ডলীতে দু’টি নতুন পদের সৃষ্টি করা। একটি, ইয়ুথ ডেভেলপমেন্ট সেক্রেটারি, অন্যটি গেম সেক্রেটারি। এমনটাও জানা যাচ্ছে, মেয়ে সোহিনীকে ইয়ুথ ডেভেলপমেন্ট সেক্রেটারি পদে বসানোর পরিকল্পনা রয়েছে অঞ্জনের।

এর বাইরে সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ যে প্রশ্নটি রয়েছে, তা হল সভা পরিচালনা করবেন কে? গত বছর টুটু বসু সভাপতিপদ থেকে ছেড়ে দেওয়ার পর ক্লাবের নিয়ম মোতাবেক এজিএম পরিচালনা করার অধিকার তাঁর নেই। কারণ, সভাপতিই এজিএম পরিচালনা করেন। তবুও নতুন করে ক্লাবে যোগ দেওয়ার আবেদন জানানোয় সভা পরিচালনার দায়িত্ব নেওয়ার উদ্দেশ্য স্পষ্ট হয়েছে গিয়েছে টুটুর কর্মকাণ্ডে। সে ক্ষেত্রে সভার শুরুতেই পোডিয়ামে উঠতে পারেন অঞ্জন। তিনি সহ-সভাপতিদের মুখ দিয়েই ক্লাবের ‘এক জন প্রবীণ সদস্য’ হিসাবে টুটুর নাম প্রস্তাব করাতে পারেন।

সভাপতি নন, এক জন প্রবীণ সদস্য হিসাবে সভা পরিচালনার দায়িত্ব টুটু গ্রহণ করলে, নৈতিক ভাবে পরাজয় হবে তাঁর গোষ্ঠীর। অন্য দিকে তিনি যদি প্রস্তাবে সম্মত না হন, তা হলে অর্থসচিবপদে দেবাশিস দত্তকে ফিরিয়ে নিয়ে আসার কোনো সম্ভাবনা থাকবে না। যা চাইছে অঞ্জন গোষ্ঠী।

বাগানের খবর, এজিএম ভন্ডুল করার ছক সাজিয়েছে দুই বিরোধী গোষ্ঠীর। যে কারণে নিরাপত্তা ব্যবস্থাও বেশ আঁটোসাঁটো করা হয়েছে। পুলিশে পাশাপাশি বাড়তি নিরাপত্তার জন্য রাখা হচ্ছে বেসরকারি সংস্থার নিরাপত্তারক্ষীও।

নির্বাচন নিয়ে সম্ভবত আগামী শনিবারের সভায় কোনো আলোচনাই হবে না।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here