ওয়েবডেস্ক: মাত্র ৫০ বছর বয়সে মারা গেলেন  তুরস্কের বিখ্যাত ভারোত্তলক নাইম সুলেমানোগ্লু। ছোট উচ্চতা এবং বিপুল শক্তির জন্য ক্রীড়াজগতে তিনি ‘পকেট হারকিউলিস’ নামে পরিচিত ছিলেন।

লিভারের সিরোসিস রোগের চিকিৎসায় তিনি হাসপাতালে ভর্তি হন। ৬ই অক্টোবর তাঁর যকৃত প্রতিস্থাপন অপারেশন করা হয় এবং তারপর থেকেই তিনি ইনটেনসিভ কেয়ারে ছিলেন। গত সপ্তাহে তাঁর অবস্থার অবনতি হলে জরুরি অস্ত্রোপচার করা হয়। শনিবার মৃত্যু হয় তাঁর।

বুলগেরিয়ায় জন্ম এই বিখ্যাত ভারোত্তলকের উচ্চতা ছিল মাত্র ৪ ফুট ১০ ইঞ্চি এবং ওজন ছিল ৬১ কেজি। নিজের ওজনের থেকে তিনগুণ ভারী ভারোত্তলন করতে পারতেন তিনি। ১৯৮৮ সালে সিওল অলিম্পিকে, ১৯৯২ সালে বার্সেলোনা অলিম্পিকে এবং ১৯৯৬ সালে অ্যাটলান্টা অলিম্পিকে পরপর তিন বার স্বর্ণপদক জিতে ইতিহাস গড়েন সুলেমানোগ্লু।

২০০০ সালে অবসর ভেঙ্গে সিডনি অলিম্পিকে চতুর্থ স্বর্ণপদক জেতার চেষ্টা করেন সুলেমানোগ্লু। প্রতিযোগিতায় আবার ফিরে এসে তিনি বলেন, “আমি শুধুমাত্র সোনাই জানি। রূপা বা ব্রোঞ্জ সম্পর্কে আমি কিছু জানি না।” তবে এই অলিম্পিকের শেষে তাঁকে খালি হাতেই ফিরে যেতে হয়।

অলিম্পিক পদক ছাড়াও তিনি নিজের কেরিয়ারে সাতবার বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপ এবং ছয়বার ইউরোপীয় চ্যাম্পিয়নশিপ জিতেছেন।

সুলেমানোগ্লু, তুরস্কের ইতিহাসের একজন অন্যতম শ্রেষ্ঠ ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব হিসাবে পরিচিত ছিলেন এবং তুরস্কের ক্রীড়াপ্রেমী সাধারন মানুষ তাঁকে এক জাতীয় নায়ক হিসাবে সম্মান করত।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here