নয়াদিল্লি : ‘আমি ২০১৬ অলিম্পিকে ব্রোঞ্জ জেতার পর হরিয়ানা সরকার কথা দিয়েছিল আর্থিক পুরস্কারের সঙ্গে সঙ্গে সরকারি চাকরিও দেওয়া হবে। কিন্তু সে কথা রাখেনি রাজ্য সরকার’। শনিবার টুইট করে ক্ষোভ উগরে দিলেন রিও অলিম্পিকে কুস্তিতে ব্রোঞ্জ জয়ী সাক্ষী মালিক। সাক্ষী অলিম্পিকে কুস্তিতে পদকজয়ী প্রথম ভারতীয় মহিলা। 


টুইটে তিনি বলেন, তিনি কথা দিয়েছিলেন দেশের জন্য লড়বেন। অলিম্পিক থেকে মেডেল আনবেন। তিনি কথা রেখেছেন। আর তিনি জিতে আসার পর হরিয়ানা সরকার তাঁকে কথা দিয়েছিল পুরস্কারের পাশাপাশি চাকরিও দেওয়া হবে তাঁকে। কিন্তু তার পর এতগুলো মাস কেটে গেছে। কিন্তু সরকার এখনও অবধি সেই বিষয়ে কোনো কিছুই জানায়নি। এই সবই লোক দেখানো। সংবাদ মাধ্যমগুলিতে প্রচার করার আর জনপ্রিয়তা বাড়ানোর ছক মাত্র। তাঁর প্রশ্ন, সরকার কবে তার কথা রাখবে?


অলিম্পিকের আগে হরিয়ানা সরকার ঘোষণা করেছিল, সোনাজয়ীকে ৬ কোটি, রুপোজয়ীকে ৪ কোটি আর ব্রোঞ্জকে ২.৫ কোটি টাকা পুরস্কার দেওয়া হবে। সাক্ষীর জয়ের পর সরকার নগদ পুরস্কার আর উৎসাহভাতা মিলিয়ে ৩.৫ কোটি টাকা পুরস্কার ঘোষণা করে। কিন্তু চাকরি কিংবা টাকা, মেলেনি কিছুই।  

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন