East Bengal Football Club

কলকাতা: ইউবি গ্রুপকে স্পনসর রাখার ব্যাপারে একটা শেষ চেষ্টা চালাতে চান লাল-হলুদ কর্তারা। শোনা যাচ্ছে, সপ্তাহ খানেকের মধ্যে এক বার দু’ পক্ষে কথা হতে পারে। কিন্তু ওই বৈঠকে ইতিবাচক ফল না মিললে কি ইস্টবেঙ্গলের স্পনসর হতে এগিয়ে আসবে ওএনজিসি? সেই সম্ভাবনা ক্রমশই জোরদার হচ্ছে। শুধু এই পথে কাঁটা হয়ে রয়েছে কিছু শর্ত।

শোনা যাচ্ছে স্পনসর হিসাবে টাকা দিতে কোনো আপত্তি নেই রাষ্ট্রায়ত্ত তেল কোম্পানিটির। তারা ইস্টবেঙ্গলকে চার কোটি টাকা দিতে রাজি বলে জানা গিয়েছে। তবে বেশ কতোগুলো শর্ত লাল-হলুদ কর্তাদের কাছে রেখেছে তারা। এর মধ্যে কিছু নিয়মমাফিক। এক আধটা কঠিন।

যে সব শর্ত রাখা হয়েছে, তার মধ্যে অন্যতম হল জার্সিতে বড়ো করে ওএনজিসি-র লোগো লাগাতে হবে। দ্বিতীয়ত, ক্লাব ম্যানেজমেন্টে তেল কোম্পানির এক জন কর্তাকে রাখতে হবে। তাঁর মতামত নিতে হবে। তৃতীয়ত, দলে বিদেশি খেলোয়াড় নেওয়ার ক্ষেত্রে তেল কোম্পানি তাদের মতামত জানাবে। এই শর্তগুলো মানা লাল-হলুদের পক্ষে খুব একটা শক্ত নয়।

কিন্তু নতুন স্পনসর আনতে গেলে ইউবি-র বোর্ড ভাঙতে হবে। এখানেই বড়ো প্রশ্নচিহ্ন। এত বছর ধরে ইস্টবেঙ্গলের সঙ্গে যুক্ত থাকা ইউবি গ্রুপ কি এত সহজে বেরিয়ে আসবে? ইউবি গ্রুপ বেরিয়ে গেলে তবেই লাল-হলুদের সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধবে ওএনজিসি। এখানেই রয়েছে অনিশ্চয়তার মেঘ।

velizar popovবুলগেরিয়া থেকে কোচ?

এ দিকে খালিদ জামিলকে সরিয়ে দেওয়ার পর লাল-হলুদ কর্তারা হন্যে হয়ে ভালো কোচের সন্ধান করছেন। জানা গিয়েছে, তাঁরা  এ ব্যাপারে বুলগেরিয়ার ভেলিজার পোপভের সঙ্গে কথাবার্তা চালাচ্ছেন। ৪২ বছরের পোপভ প্রায় দু’ দশক ধরে ফুটবল কোচিং-এর সঙ্গে যুক্ত। ইউরোপ এবং পশ্চিম এশিয়া সহ এশিয়ার বিভিন্ন জায়গায় প্রায় শ’ খানেক স্বীকৃত ম্যাচে তিনি হেড কোচের দায়িত্ব পালন করেছেন। এএফসি কাপ, উয়েফা ইউরোপা কাপ এবং এশিয়ান ওয়ার্ল্ড কাপ কোয়ালিফায়ারে হেড কোচের দায়িত্ব সামলেছেন পোপভ।

সূত্র মারফত জানা গিয়েছে, ওএনজিসি-র সম্মতিক্রমেই ইস্টবেঙ্গল কর্তারা বুলগেরীয় কোচের সঙ্গে কথাবার্তা চালাচ্ছেন। কিন্তু প্রশ্ন হল সুভাষ ভৌমিক কি পোপোভের মতো বিদেশি কোচের সঙ্গে কাজ করতে প্রস্তুত থাকবেন?

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here